IELTS Reading ও Writing টেস্ট এর প্রস্তুতি যেভাবে নেবে

April 27, 2022 ...

IELTS Reading প্রস্তুতি:

IELTS পরীক্ষার একটি অন্যতম অংশ হচ্ছে রিডিং। এই অংশটির মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে passage পড়ে সেটার প্রধান অংশগুলো সঠিকভাবে আমরা অনুধাবন করতে পারছি কি না সেটি যাচাই করা। বিভিন্ন বাক্য ও শব্দের অর্থ না বুঝলে এই অংশে ভালো করা সম্ভব না। এছাড়াও লেখকের লেখার উদ্দেশ্য ও মতামত, এগুলোও ভালো করে বুঝতে হবে। এটি IELTS General Training এবং IELTS Academic: দুই ধরনের পরীক্ষার ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। 

সাধারণত আমাদের একটি ভাবনা হচ্ছে, IELTS রিডিং অন্য অংশগুলোর চেয়ে সহজ। প্রকৃতপক্ষে, রিডিং পার্টটির জন্যও যথেষ্ট প্রস্তুতি নেওয়া চাই। তাহলে চলুন দেখে নেই কীভাবে:

১. জেনে নিন পরীক্ষার ধরন ও সময়

IELTS Reading অংশে ভালো করতে হলে প্রথমেই জেনে নিতে হবে পরীক্ষার ফরম্যাট। এতে আপনি আগে থেকেই কীভাবে প্রশ্নগুলো করা হবে, তা জেনে নিতে পারবেন এবং আপনার আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি পাবে। 

ক. আপনাকে ৩টি passage পড়তে দেওয়া হবে যেখানে সর্বোচ্চ শব্দসংখ্যা হবে ২,৭৫০। 

খ. এর ভিত্তিতে আপনাকে ৪০টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে যেখানে প্রতিটির মান হবে ১। এই প্রশ্নগুলো করা হবে আপনাকে দেওয়া সেই তিনটি রিডিং টেক্সট থেকে। তাই, টেক্সটটির উদ্দেশ্য ও মতামত ভালো করে বুঝে নিতে হবে। 

গ. সম্পূর্ণ রিডিং পার্টটির জন্য আপনার কাছে থাকবে ৬০ মিনিট। তাই, প্রতিটি টেক্সটের পেছনে সময় ব্যয় করা যাবে ২০ মিনিট।

IELTS Reading Tips
IELTS-Reading Tips (Image Source: Y-Axis Blog)

২. জেনে নিন প্রশ্নের ধরন 

পরীক্ষা কোন ফরম্যাটে হবে, এটার পাশাপাশি আপনাকে এটাও জেনে নিতে হবে যে প্রশ্নগুলো করা হবে, সেগুলো আসলে কোন টাইপের হয়ে থাকে। চলুন, দেখা যাক

IELTS Reading Task
IELTS Reading Task (Image Source: GrowSkills)
  • Multiple Choice
  • Identifying Information
  • Sentence Completion
  • Identifying Author’s views
  • Matching Headings
  • Table Completion
  • Note Completion
  • Summary Completion

প্রকৃতপক্ষে প্রশ্ন আরও বিভিন্ন ধরণের হয়ে থাকে, কিন্তু এগুলো সবচেয়ে কমন। Multiple Choice বা Matching Headings গুলো থাকার সম্ভাবনা খুব বেশি। তাই এগুলো অধিক প্র্যাক্টিস করতে হবে। 

৩. টাইম ম্যানেজমেন্ট 

IELTS পরীক্ষায় সময় থাকে খুবই কম। তাই এই অংশটুকু প্রাকটিস করার সময় প্রতিটা টাস্কে বা passage – এ কতটুকু সময় দেওয়া যাবে, সেটা খুব ভালো করে খেয়াল করে নিতে হবে। কেননা, প্রতিটি মিনিটর গুরুত্ব এখানে খুব বেশি। সব চেয়ে ভাল হয় বাসায় IELTS রিডিং পরীক্ষার কিছু Mock Test দিয়ে নেওয়া। শুধু Mock Test দিলেই হবে না, টাইম ম্যানেজ করে সুন্দর করে একদম স্ট্যান্ডার্ড পদ্ধতিতে দিতে হবে, যেন মূল পরীক্ষা দেওয়ার সময় আপনার টাইম নিয়ে কোনো সমস্যায় না পড়তে হয়।

৪. প্যাসেজের চেয়ে বেশি ফোকাস করুন প্রশ্নগুলোর দিকে! 

আমরা অনেকেই প্রশ্নের দিকে ভাল করে খেয়াল না করেই passage – এর মধ্যে অনেক সময় দিয়ে ফেলি। এতে টেক্সটের অপ্রয়োজনীয় জিনিস বুঝতে বুঝতে অধিক সময় নষ্ট হয় এবং যা প্রকৃতপক্ষে প্রয়োজন, সেটার দিকে খেয়াল করা হয় না। 

এখানে ট্রিকটা হচ্ছে, প্রশ্নগুলো আগে পড়ে প্রসেস করে নেওয়া যে আমার কোন কোন ইনফরমেশন গুলো প্রয়োজন এবং সেগুলো কীভাবে পাওয়া যাবে। এটা হয়ে গেলে তারপর টেক্সটটি পড়ে দেখা উচিৎ। 

IELTS Writing প্রস্তুতি

IELTS পরীক্ষার অন্যতম কঠিন একটি অংশ হচ্ছে Writing পার্ট। আমরা অনেকেই এই অংশের প্রস্তুতি নিতে গিয়ে ভেবাচেকা খেয়ে যাই যে কোন জায়গা থেকে শুরু করব এবং কীভাবে এর প্রস্তুতি নিলে IELTS Writing – এ একটি ভালো স্কোর করা যাবে।

সত্য কথা হচ্ছে, Writing এর পার্টটা সহজ নাকি কঠিন, এটা নির্ভর করে আপনার প্রস্তুতির উপর। সঠিক পদ্ধতিতে প্র্যাক্টিস করলে এটা মোটেও কঠিন লাগবে না বরং তখন আপনার আত্নবিশ্বাস আরও বৃদ্ধি পাবে। যায় হোক, শুরু করা যাক তবে…

১. জেনে নিন IELTS রাইটিং পার্টটের পরীক্ষার নিয়মাবলী

একটা জিনিস যা আমরা প্রায়ই ভুল করি বা মাথায় আসে না, সেটা হচ্ছে কোনো পরীক্ষার আগে, সেটা IELTS বা যে পরীক্ষাই হোক না কেন, পরীক্ষার মানবন্টন বা কাঠামো দেখে নেওয়া। 

IELTS Academic রাইটিং পরীক্ষার দুইটি অংশ রয়েছে। একটিতে চার্ট বা গ্রাফের উপর রিপোর্ট লিখতে হয় এবং দ্বিতীয় অংশে লিখতে হয় essay. এর মধ্যে দ্বিতীয় টাস্কটিতে সময় দিতে হয় প্রায় দ্বিগুণ। 

IELTS General Training রাইটিং পরীক্ষায় প্রথম টাস্কে রিপোর্টের বদলে লিখতে হয় লেটার। 

২. IELTS রাইটিং-এ ভালো করতে হলে IELTS মডেল Essay পড়ুন 

হ্যাঁ, ঠিকই শুনেছেন। IELTS রাইটিং এ ভালো করতে হলে এর প্রস্তুতি হিসেবে পড়তে হবে। প্রচুর। 

IELTS পরীক্ষায় ভাল করার জন্য একাডেমিক বিভিন্ন রিপোর্ট, বা রিডিং টাস্ক গুলো পড়ুন, ভালো করে এবং অর্থসহ। এগুলো পড়তে থাকলে আপনি একটা ভালো আইডিয়া পেয়ে যাবেন যে IELTS পরীক্ষায় কী রকম প্রশ্ন এসে থাকে এবং সেগুলোতে ভালো করার জন্য আপনি এখন যতটুকু পারদর্শী, সেই লেভেল থেকে আপনাকে আরও কতটা উন্নতি করা লাগতে পারে। 

৩. শিখে ফেলুন ভোকাবুলারি

কোনো কিছু ভালো করে বর্ণনা করে লিখতে গেলে, এমনকি স্পোকেন ইংলিশের ক্ষেত্রেও, ভোকাবুলারির ভীত মজবুত থাকা চাই। সেটার জন্য টপিক অনুযায়ী ভোকাবুলারি চর্চা করা শুরু করে দিতে হবে। IELTS এ যে ধরণের টপিক বেশি জোর দেওয়া হয়, বা যে টপিকগুলো বেশি আসে সেই সব টপিকের ভোকাবুলারি ভালো করে শিখে নিতে হবে। যেমন: পরিবেশ, শিক্ষা, চাকরি, ইত্যাদি।

এখানে আরও একটা কাজ করা যেতে পারে যে, আগে থেকেই দেখে নিবেন যে এই টপিকগুলোতে কোন কোন শব্দ গুলো ব্যবহার করা হচ্ছে এবং কোন কোন শব্দ এক সাথে ব্যবহার করে বাক্যতে ব্যবহৃত হচ্ছে? সেগুলো লিখে রাখুন এবং নিয়মিত পড়ুন। 

সবার IELTS পরীক্ষার জন্য শুভ কামনা! 

আপনার কমেন্ট লিখুন