ইংরেজিতে ইন্টারভিউয়ের টপ প্রিপারেশন

March 10, 2022 ...

ইংরেজির সাথে আমাদের শত্রুতা যেন সেই মান্ধাতার আমলের! সেই যে, অনেক বছর আগে কোনো একদিন ছোট্ট একটা ব্যাগ কাঁধে ঝুলিয়ে জামা-জুতো পরে বাবা কিংবা মায়ের হাত ধরে স্কুলে রওয়ানা হয়েছিলাম, সেদিন থেকেই ইংরেজির সাথে আমাদের পরিচয়। তারপর লম্বা সময় পেরিয়ে গেলেও এখনো পর্যন্ত ইংরেজির সাথে সখ্যতা গড়ে তোলা সম্ভব হয়নি আমাদের বেশিরভাগের পক্ষেই, বরং শত্রুতা বাড়তে থেকেছে দিনের পর দিন। ইংরেজি নামের এই বস্তু তাই এখনো বেশিরভাগ বাংলাদেশির কাছেই একটু বেশি রকমের বিদঘুটে!

ইংরেজিটা যতই বিদঘুটে লাগুক না কেন, ইংরেজিতে দক্ষ হওয়া ছাড়া, অন্তত এই আধুনিক পৃথিবীতে যে অন্য কোনো গতি নেই সেই সত্যিটা বেশ ভালোভাবেই বোঝা যাচ্ছে আজকাল। শিক্ষাজীবন থেকে শুরু করে কর্মজীবন, সব খানেই ইংরেজিতে দক্ষতার উপর দেওয়া হচ্ছে বিশেষ গুরুত্ব। বিশেষ করে চাকরির ইন্টারভিউগুলোর বেশিরভাগই আজকাল ইংরেজিতে হয়ে থাকে। কাজেই আপনার যদি ইংরেজিতে কথা চালিয়ে যাওয়ার মতো দক্ষতা না থাকে, তাহলে চাকরি পাওয়াটা আপনার জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়া এভারেস্ট জয় করার মতোই শক্ত ব্যাপার।

কাজেই ইন্টারভিউ প্রশ্ন এবং উত্তর ইংরেজিতে দিতে হবে শুনলেই যদি টেনশনে আপনার পেটের ভেতর গুড়গুড় করতে শুরু করে, কানের ভেতরটা সুরসুর করতে শুরু করে, নাকের ওপর উচ্চিংড়ে লাফাতে শুরু করে আর দরদর করে ঘাম হতে শুরু করে; তাহলে নির্ঘাত মহাবিপদ! শুধুমাত্র ইন্টারভিউ প্রশ্ন এবং উত্তর ইংরেজিতে হবে, এই কারণেই অনেকে ইন্টারভিউ দিতে যেতেই ভয় পান; অথবা ইন্টারভিউ দিতে গেলেও আত্মবিশ্বাসের অভাবে ভালো করতে পারেন না। এই বিপদ থেকে বাঁচার জন্য আপনার দরকার যথাযথ প্রস্তুতি। তাহলে, কী কী বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে আপনাকে? এই ব্লগে আমরা তুলে ধরেছি কিছু কোয়ালিটি ইন্টারভিউ প্রশ্ন এবং তার উত্তর।

কিছু সাধারণ ইন্টারভিউ প্রশ্ন এবং উত্তর ইংরেজিতে

যে জায়গাতেই ইন্টারভিউ দিতে যান না কেন, কিছু সাধারণ প্রশ্নের মুখোমুখি আপনাকে সব জায়গাতেই হতে হবে। এসব প্রশ্নের উত্তর তৈরি করে রাখাটাই বুদ্ধিমানের কাজ। এরকম কিছু প্রশ্নের মধ্যে রয়েছে আপনার ব্যক্তিগত পরিচয় জানতে চাওয়া, আপনার অভিজ্ঞতা জানতে চাওয়া, আগে কোথায় কাজ করতেন, আগের চাকরি কেন ছেড়ে দিচ্ছেন, এই প্রতিষ্ঠানে কেন যোগ দিতে চান, আপনার শক্তিমত্তা ও দুর্বলতা ইত্যাদি। কাজেই এসব প্রশ্নের উত্তর প্রস্তুত করে রাখুন, মানসিক প্রস্তুতি নিন এবং নিজে নিজেই এসব স্পষ্ট ও সুন্দরভাবে বলার চেষ্টা করুন; নিজে নিজেই প্র্যাকটিস করুন।

তবে ভাইভা কিংবা ইন্টারভিউ, যাই বলি না কেন, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ইন্টারভিউ প্রশ্ন এবং উত্তর ইংরেজিতে হয়ে থাকে, যার জন্য প্রয়োজন স্পোকেন ইংলিশের শক্ত দখল। আপনার যদি স্পোকেন ইংলিশে দুর্বলতা থেকে থাকে, আপনার জন্য টেন মিনিট স্কুল নিয়ে এসেছে “ঘরে বসে স্পোকেন ইংলিশ” কোর্স, যার মাধ্যমে আপনি আপনি কাটিয়ে তুলতে পারবেন ইংরেজিতে কথা বলার ভয়। এছাড়া যদি আপনার ইংরেজি গ্রামারে দুর্বলতা থেকে থাকে, আপনার জন্য আছে English Grammar Crash Course, যার মাধ্যমে রুলস মুখস্ত করা ছাড়াই সহজ পদ্ধতিতে শিখতে পারবেন ইংরেজি গ্রামারে সকল নিয়ম।

সাধারণত সব জায়গায় জিজ্ঞাসা করা হয়, এমন কিছু প্রশ্নের উত্তর দেয়ার সময় কিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে।

Q: “Tell something about yourself…”

অর্থাৎ নিজের সম্পর্কে কিছু বলুন ইংরেজিতে। এই প্রশ্নটা সবার আগে করা হয়, খুব স্বাভাবিক ভাবেই। এবং অদ্ভুত ব্যাপার হচ্ছে, অল্প কথায় নিজের সম্পর্কে কিছু বলুন, এমন অতি সাধারণ এই প্রশ্নের উত্তর দিতেও অনেকেই রীতিমতো হিমশিম খান।

আপনাকে মনে রাখতে হবে, স্কুল-কলেজে যে ‘Myself’ প্যারাগ্রাফ লিখে এসেছেন, এখানে আপনার জবাব মোটেও সেরকম হবে না। আপনি চাকরির জন্য এসেছেন অথবা অন্য কোনো কাজের জন্য; সুতরাং অবশ্যই আপনার কাজের সাথে সামঞ্জস্য আছে এমন কথাগুলোই কেবল আপনি বলবেন। এর বাইরে অন্য যেকোনো কথাই প্রশ্নকর্তার বিরক্তির উদ্রেক ঘটাবে। নিজের সম্পর্কে ইংরেজিতে কিছু বলা সহজ শুনালেও বাস্তবে এতটাও সহজ নয়।

কাজেই আপনার উত্তর হতে পারে এরকম :

“I am Tazrian Alam Ayaz. I am an Engineering graduate. I’m a really energetic person, a real self-starter. What I mean by self-starter is that in the past I’ve loved being independent and taking on new projects and developing my fresh ideas…”

আপনার উত্তর শুনেই যেন আপনার প্রতি প্রশ্নকর্তার ব্যাপক আগ্রহ জন্মে, সে দিকে সর্বোচ্চ খেয়াল থাকতে হবে আপনার।

এর পাশাপাশি আপনি চাইলে আরও ৩টি বাক্য ব্যবহার করে নিজের সম্পর্কে ইংরেজীতে কিছু কথা বলে প্রশ্নকর্তার মনে আগ্রহ তৈরি করতে পারেন:

বাক্যের ধরন

ব্যাখ্যা ও উদাহরণ

I have always loved ____________ and __________.


এই dash গুলোতে আপনি সেই ধরণের দক্ষতারগুলোর কথা বলবেন যেগুলোতে আপনি ভালো এবং আপনি পছন্দ করেন।

যেমন, I have always loved designing and building/creating things.

হয়তোবা আপনি শিক্ষকতা নিয়ে ইন্টারভিউ দিচ্ছেন, তখন আপনি বলবেন,

I have always loved researching and teaching.

খেয়াল করে দেখবেন যে, আপনি যে চাকরির জন্য এপ্লাই করেছেন সেই চাকরির জন্য যে স্কিলগুলো লাগে এবং যেগুলো আপনার কাছে আছে বা আপনি ভালো, সেই স্কিলগুলো এই দুইটা blank এ mention করার চেষ্টা করবেন। শিক্ষকতা হলে researching, teaching বলতে পারেন। ডিজাইনিং-এর জব হলে designing, creating things বলতে পারেন। writing এর জব হলে হয়তোবা আপনি writing and editing বলতে পারেন। অনেক কিছু দিয়ে কিন্তু এই blank গুলা fill করা সম্ভব। শুধু আপনি যে ধরনের চাকরির জন্য এপ্লাই করছেন এবং আপনার যে ধরনের স্কিল আছে, সেগুলো দিয়ে আপনি blank fill করে আপনি sentence টা ঠিক করে ফেলবেন, sentence এর structure টা কিন্তু চেঞ্জ হচ্ছে না, শুধু blank এর শব্দগুলো চেঞ্জ হচ্ছে।

আগের বাক্যে যা বলছেন তার থেকে একটু এক্সট্রা জিনিস যোগ করবেন এই বাক্যে। কীভাবে?

So I suppose it’s natural I became ________

আগের বাক্যে যে স্কিলের কথা বলেছেন সেগুলোর উপর ভিত্তি করে আপনি এই blank টা fill করবেন। কিন্তু আবারও খেয়াল করে দেখেন যে, আমাদের পুরো বাক্যের structure টা ঠিক থাকছে।

So I suppose it’s natural I became ________.

So I supposed it’s natural I became a designer.

অথবা, So I supposed it’s natural I became a teacher.

খেয়াল করে দেখবেন, আগের বাক্যে কিন্তু আমরা ইতিমধ্যে একবার ইন্টারভিউয়ারদের বলেছি যে আমাদের কী করতে ভালো লাগে, যেমন ডিজাইনিং বা এডিটিং। এই বাক্যের অর্থ হলো যে, ‘সুতরাং, আমি মনে করি এটাই স্বাভাবিক যে আমি একজন শিক্ষক হয়ে গিয়েছি।’

এই বাক্যটার মধ্যমে আপনি ইন্টারভিউরদেরকে বুঝানোর চেষ্টা করবেন যে, আপনি এর আগে অনেকগুলো কোম্পানিতে অনেক ধরনের কাজ করেছেন, বিভিন্ন ধরনের দায়িত্ব আপনার ছিল, কিন্তু এখন একটা নতুন challenge খুঁজছেন, যার কারণে আপনি নতুন চাকরির জন্য এপ্লাই করছেন।


I have worked in a _________ of roles in different companies, but now I’m up for a new challenge.



I have worked in a number of roles.

অথবা, I have worked in a variety of roles.

Number/variety দুইটারই অর্থ হলো যে, আমি আগে যে কোম্পানিগুলোতে কাজ করছি, সেখানে অনেক রকমের কাজ করেছি। আপনার হয়তোবা অনেক ধরনের কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে।

এরপরে আমরা বলেছি, ‘but now I’m up for a new challenge.’ যে আমি আগে যে কোম্পানিগুলোতে কাজ করেছি সেখানে অনেক ধরনের কাজ করা হয়েছে, কিন্তু আমি এখন একটা নতুন চ্যালেঞ্জ এর খুঁজে আছি এবং এই কারণে আমি এই চাকরির জন্য এপ্লাই করেছি।

এভাবেই আপনি নিজের সম্পর্কে ১০ টি বাক্য ইংরেজিতে বলতে পারেন।

Q: “Where do you see yourself in 5 Years?”

এটাও কিন্তু ইন্টারভিউর কমন একটা প্রশ্ন, যার অর্থ হলো যে, আপনি নিজেকে ৫ বছর পরে কোথায় দেখছেন? তিনটা খুবই সহজ বাক্য যা দিয়ে আমরা এই প্রশ্নের উত্তর খুব সহজে দিতে পারি:

বাক্যের ধরন

ব্যাখ্যা ও উদাহরণ

মনে করেন, আপনাকে এই প্রশ্নটা করা হলো। আপনাকে প্রথমেই বলতে হবে, ক্যারিয়ারের জন্য আপনার কাছে সব চেয়ে প্রয়োজনীয় কোন জিনিসটা? হতে পারে সেটা বেশি শেখা বা অনেক বেশি ভালো করা বা ডেভেলপ করা। এই ধরনের জিনিসগুলোই এই প্রশ্নটির উত্তর হয়ে থাকে। এটা আপনি কীভাবে ইংরেজিতে বলবেন?

The most important thing is that I continue to ___________ in my career.

The most important thing is that I continue to learn in my career.

অথবা, The most important thing is that I continue to develop in my career.

অথবা, The most important thing is that I continue to grow in my career.

খেয়াল করে দেখবেন, আমি learn, develop, grow যা-ই ব্যবহার করি না কেনো অর্থ একটাই, সেটা হচ্ছে যে, আপনি আপনার ক্যারিয়ারে আপনার সব চেয়ে বেশি জরুরী হলো আপনাকে শিখতে হবে, ডেভেলপ করতে থাকতে হবে বা grow করতে হবে। আপনি কিন্তু সহজেই একটা বাক্য ব্যবহার করেই কিন্তু আপনি এই অর্থটাই বুঝাতে পারছেন যে, আপনার কারিয়ার আপনি শিখতে থাকেন এবং ডেভেলপ করতে থাকেন।

এরপরে আপনি চাইলে কিন্তু সহজেই আরও information যোগ করতে পারেন। আপনি কী ধরনের মানুষ আপনি তাদের এটা নিয়ে কথা বলতে পারেন। সেটার জবাব শুনে তারা হয়তো বুঝতে পারবে আপনি কোন দিকে যাবেন বা আপনার growth কেমন হবে। কীভাবে বলবেন সেটা?

I am the kind of person who needs ____________ to stay focused.

এখানে আপনি আপনার জন্য যা প্রযোজ্য আপনি সেটা বসাবেন। আপনার ক্যারিয়েরে মনোযোগ দেওয়ার জন্য যা দরকার সেটা আপনি এখানে বসাবেন।

হয়তোবা আপনার নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ দরকার। সেক্ষেত্রে আপনি বলবেন,

I am the kind of person who needs challenges to stay focused.

মানে, আমার ফোকাস থাকতে হলে আপনার অনেক চ্যালেঞ্জ প্রয়োজন।

হয়তোবা আপনি বলতে পারেন,

I am the kind of person who needs new tasks to stay focused.

মানে, আমার নতুন নতুন কাজ করতে থাকতে হয়, তাহলে আমি আমার ফোকাসটা ধরে রাখতে পারবো।

আপনার জন্য যা প্রযোজ্য আপনাকে ঠিক সেটাই বসাতে হবে এই blank এর মধ্যে।

শেষ যে বাক্যটা আপনি ব্যবহার করতে পারেন এই প্রশ্নটির উত্তর দেওয়ার জন্য সেটা হচ্ছে,

মনে করেন যে, ৫ বছর পর আপনি একজন উদ্যোক্তা হতে চান। এটা আপনি সহজেই বলতে পারেন এভাবে-

I might even ______________ because that is something I have always wanted to do.

I might even start my own business because that is something I have always wanted to do.

মানে, হয়তোবা ৫ বছর পরে আমি নিজের ব্যবসা শুরু করতে পারি, এটা আমার অনেক দিনের ইচ্ছা।

I might even become an entrepreneur because that is something I have always wanted to do.

খেয়াল করে দেখবেন যে, আপনার যদি ৫ বছর পর যদি উদ্যোক্তা হওয়ার ইচ্ছা থাকে, শুধু মাত্র তখন চাইলে আপনি এই বাক্যটা বলতে পারেন।

Q: “What are your strengths?”

দুইটা বাক্যের মাধ্যমে কিন্তু খুব সহজেই এই প্রশ্নটির উত্তর দেওয়া সম্ভব। অনেক সময় দেখা যায় যে ইন্টারভিউতে হঠাৎ করে জিজ্ঞেস করলে আমরা বুঝে উঠতে পারি না যে কী নিয়ে কথা বলবো। প্রথমে আপনি আপনার strong side গুলা নিয়ে কথা বলবেন। সেটা কীভাবে?

I am very good at ____________.

I am very good at working in teams.

অনেক জনের টিমের মধ্যে কাজ করতে আমি অনেক ভালো।

I am very good at solving problems.

মানে, আমি অনেক ভালো করে সমস্যা সমাধান করতে পারি।

I am very good at multitasking.

মানে, আমি অনেকগুলো কাজ এক সাথে করতে পারি।

খেয়াল করে দেখবেন, এখানে কিন্তু আপনার যে strong side আছে, সেটার কথা এখানে dash er মধ্যে বসিয়ে দিলেই হচ্ছ

Q: “What’s your greatest weakness?”

এই প্রশ্নের মাধ্যমে প্রশ্নকর্তা আপনার কাছে আপনার দুর্বল দিক সম্পর্কে জানতে চেয়ে থাকে। সেটাও কিন্তু একটা সহজ বাক্য দিয়ে বলা সম্ভব। কীভাবে?

I suppose I can be a bit ___________ at times.

আমার মনে হয় আমি মাঝে মধ্যে একটু _________।

এখানে আপনি আপনার দূর্বল দিকটা বলবেন।

I suppose I can be a bit careless at times.

মানে, মাঝে মধ্যে আমি কিছুটা অমনোযোগী হয়ে যাই।

আপনি এটাও বলতে পারেন,

I suppose I can be a bit inattentive at times.

মানে, মাঝে মধ্যে আমি কিছুটা অমনোযোগী হয়ে পড়ি ।

I suppose I can be a bit forgetful at times.

মাঝে মধ্যে আমি বিভিন্ন জিনিস ভুলে যাই।

আপনার দূর্বল দিকটাই dash এর মধ্যে বসিয়ে দিলেই হচ্ছে, বাকি সব same থাকছে।

Q: “Why did you leave your last job?”

এটাও খুবই স্বাভাবিক একটা প্রশ্ন। আপনার উত্তর হতে পারে এরকম:
“I am looking for new challenge. I have been with my current company for 2 years now and do not find the work as interesting as I once did.”

Q: “Why do you want to work here?”

এই প্রশ্নের উত্তরে আপনাকে যথেষ্ট কৌশলী হতে হবে। উত্তর হতে পারে এরকম:
“I did some research and selected the companies I am most interested in working for, and yours is at the top of my list. The basis of the research was the reputation of your company, product reliability and industry stability, as well as the work culture that exists here.”

এছাড়াও নিচের প্রশ্ন আর তার উত্তরগুলো আপনার কাজে আসতে পারে।

Q: “How much salary do you expect?”

Answer: “Salary is my second priority. I want to enhance my knowledge and build on my skills while I work here. However, in return for my dedication, I expect a salary of BDT ____ per month”

এছাড়াও ইন্টারভিউ বোর্ডে আপনাকে প্রশ্ন করার সুযোগ দেয়া হতে পারে। অনেকেই এক্ষেত্রে আগ্রহ দেখান না। তবে প্রশ্ন করার সুযোগ পেলে অবশ্যই আপনি প্রশ্ন করবেন। আপনার প্রশ্ন করার প্রবণতা প্রতিষ্ঠানের প্রতি আপনার আগ্রহ প্রমাণ করবে।

Q. “Do you have any questions?”

এক্ষেত্রে আপনার উত্তর হতে পারে এরকম:

“Can you explain the roles and responsibilities in greater detail?”

“What are the growth opportunities for me in this company?”

“What are the next steps of the interviewing process?”

মনে রাখবেন, এ প্রশ্নগুলোর যথাযথ উত্তরই আপনাকে ভালো করতে সাহায্য করবে। কাজেই গাইডলাইন অনুসরণ করে নিজের মতো উত্তর সাজিয়ে নেবেন অবশ্যই।

ব্যাকরণ নিয়ে ভাববেন না

সেই ছোট্ট বয়স থেকেই ক্রমাগত ইংরেজি ব্যাকরণ পড়তে পড়তে আমাদের মাথায় ‘শুদ্ধভাবে’ ইংরেজি বলার গুরুত্বটা খুব ভালোভাবেই ঢুকে গেছে। শুদ্ধভাবে ইংরেজি বলতে পারাটা অবশ্যই জরুরি। তবে একটা বিষয় আপনাকে অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে, চাকরির ইন্টারভিউ কিন্তু মোটেও নিজেকে ইংরেজির জাহাজ প্রমাণ করার জায়গা নয়! যাদের মাতৃভাষাই ইংরেজি, তারা কিন্তু কথা বলার সময় এত ব্যাকরণের ধার ধারে না, শুধু যা বলার তা বলে ফেলে! ইন্টারভিউ বোর্ডে আপনি ইংরেজি প্রশ্নের উত্তর কতটা শুদ্ধভাবে বলছেন তার চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, আপনি কতটা স্বচ্ছন্দে এবং সাবলীলভাবে আপনার কথাগুলো বোঝাতে পারছেন। মনে রাখতে হবে, ইন্টারভিউ প্রশ্ন এবং উত্তর ইংরেজিতে দেওয়ার আপনার অ্যাকুরেসির চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ আপনার ফ্লুয়েন্সি। কে কতটা ব্যাকরণ জানে সেটা কেউ খেয়াল করবে না। তবে হ্যাঁ, তাই বলে একেবারে লাগাম ছাড়া ইংরেজি বলতে থাকবেন তেমনটাও নয়! শুধু মনে রাখবেন, আপনার কথাগুলো সাবলীলভাবে বলতে হবে, ব্যাকরণের দিকে বেশী নজর দিতে গিয়ে যেন সব গুলিয়ে না ফেলেন।

ভাবিয়া করিও না

বাংলাতে যখন আপনি কথা বলেন, তখন কিন্তু আপনার খুব বেশি ভাবার দরকার পড়ে না। বরং নিখুঁত ভাবে একের পর এক বাক্য সাজিয়ে আপনার মনের ভাব প্রকাশ করতে পারেন। ঠিক বলছেন নাকি ভুল, তা নিয়েও আপনার তেমন একটা মাথা ঘামাতে হয় না। ইংরেজিতে কথা বলার সময়েও যদি আপনি ভাবনা-চিন্তা বাদ দিয়ে নিজের মতো করে বলার চেষ্টা করেন, তাহলে দিব্যি গড়গড়িয়ে কথা বলা যায়। ইংরেজি যেহেতু আমাদের মাতৃভাষা নয়, তাই এ কাজটি অবশ্যই কঠিন।

তবে এরকম অভ্যাস একবার আয়ত্ত করে ফেলতে পারলেই আর চিন্তা নেই!

মনে মনে ইংরেজিতে ভাবুন

ইংরেজিতে আমরা কীভাবে কথা বলি? যা বলতে চাই তা প্রথমে মনে মনে ভাবি, তারপর সেটা ইংরেজিতে অনুবাদ করে উচ্চারণ করি, তাই তো?

এই অভ্যাসটাই আপনাকে ভোগাবে। ইংরেজিতে সোজাসাপ্টা কথা চালিয়ে যেতে হলে অবশ্যই অনুবাদের অভ্যাস ছাড়তে হবে। ইংরেজিতে যেটা বলবেন, সেটা যদি বাংলা থেকে অনুবাদ করেই বলতে হয় তবে তার চেয়ে খারাপ আর কিছু হতে পারে না। বরং সরাসরিই ইংরেজিতে ভাবুন।

এর জন্য অবশ্য প্র্যাকটিসটাও খুব জরুরি। ইংরেজিতে চিন্তা করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। যেকোনো একটা টপিক বেছে নিন, সে সম্পর্কে ইংরেজিতে ভাবতে থাকুন। এতে আপনার ইংরেজিতে কথা বলার সময় আটকে যাওয়ার প্রবণতা ধীরে ধীরে কমে আসবে।

 কিছু ছোটখাটো ভুল

ব্যাকরণ নিয়ে বেশি ভাবা উচিত নয় ঠিকই, তবে তাই বলে আপনি হাস্যকর ভুল করবেন, তা নিশ্চয়ই কারো চোখ এড়াবে না! এমন কিছু ভুল আছে, যেগুলো বড্ড বেমানান। হয়তো নার্ভাসনেসের কারণে এরকম অনেক ভুল হয়ে যেতে পারে, যা অত্যন্ত তুচ্ছ হলেও ভীষণ দৃষ্টিকটু। কাজেই এ ব্যাপারে অবশ্যই সতর্ক থাকা দরকার। এরকম ছোট ছোট কিছু ভুল এড়ানোর জন্য এই ছবিগুলো দেখে নেয়া যেতে পারে।

রুমে প্রবেশের সময়…

GKmoOSw2ixISvOfWuc kzX luJbqwN Wj266PHAZl0LO0E8U3h4K26F UooRZJ8VT3hvHQx93GoYzK3In UuZ36 hBTLBXo9s1RE8TtcjlZ O2gi aK9GgcQeGKyvIlQ1oaSIjI3

নিজের সম্পর্কে বলার সময়…

নিজের সম্পর্কে কিছু বলুন ইংরেজিতে

একাডেমিক পড়াশোনা সম্পর্কে বলার সময়,

নিজের সম্পর্কে ইংরেজীতে কিছু কথা

বিভিন্ন পরীক্ষা সম্পর্কে বলার সময়,

elp PYMreCnhJy3AqdpitznE1kMS g3qT jO1q8ux3ALZ6qPqikJGkZ0bqu 1K9hc63hNHdtE48fDhJcxoPyK6kPEr

এছাড়া,

myself সম্পর্কে

বডি ল্যাংগুয়েজ

ইন্টারভিউ বোর্ডে আপনার বডি ল্যাংগুয়েজ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বলা হয়, মানবীয় যোগাযোগের শতকরা ষাট ভাগই হয়ে থাকে বডি ল্যাংগুয়েজের মাধ্যমে। কাজেই বডি ল্যাংগুয়েজের উপর আপনাকে যথেষ্ট জোর দিতে হবে। নার্ভাসনেসের কারণে বডি ল্যাংগুয়েজ দৃষ্টিকটু হয়ে যায়, ফলে ইন্টারভিউতে আপনার ভালো করার সম্ভাবনাও কমে যায়।

অল্প কথায় নিজের সম্পর্কে কিছু বলুন

 হাসুন

কথা বলার সময় অবশ্যই হাসি মুখে কথা বলুন। হাসি মুখে কথা বলার প্রবণতা ইন্টারভিউ বোর্ডে থাকা কর্মকর্তাদের কাছে আপনার সম্পর্কে ভালো দৃষ্টিভঙ্গি গড়ে তুলবে। আপনার হাসিমুখ আপনার আত্মবিশ্বাসের লক্ষণ। কাজেই হাসি মুখে কথা বলাটা বেশ জরুরি।

নিজের উপর বিশ্বাস রাখুন

নিজের উপর বিশ্বাস রাখাটা খুব দরকার। ইন্টারভিউয়ের আগেই যদি আপনার টেনশনে মরে যাওয়ার অবস্থা হয়, তাহলে কখনোই আপনি ভালো করতে পারবেন না। আত্মবিশ্বাস থাকলে, দুর্ভাগ্যক্রমে আপনি সফল হতে না পারলেও ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন উদ্যমে লেগে পড়তে পারবেন। আর তাতে কাজটা আরো সুচারুভাবে সম্পন্ন করা যাবে। কাজেই কিছুতেই নিজের উপর বিশ্বাস হারানো যাবে না।

ইন্টারভিউ বোর্ডের সামনে বসে ফটাফট ইংরেজিতে কথা বলতে পারাটা জীবন বাঁচানোর মতোই ফরজ কাজ! তাই আপনাকে সম্পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়েই সামনে এগোতে হবে।

একটা বিষয় অবশ্যই মনে রাখবেন, আপনি আপনার কথাগুলো সহজ ভাষায় সাবলীলভাবে বলতে পারলেই কিন্তু একেবারে কেল্লা ফতে! কাজেই চাপ না নিয়ে বরং প্রস্তুতি নিন।

আর চাপ নেয়ার চেয়ে প্রস্তুতি নেয়া কিন্তু হাজার গুণ উত্তম!


Sources:

10 Common Job Interview Questions and How to Answer Them | Vicky Oliver | Harvard Business Review 

Your 2022 Guide to the Most Common Interview Questions and Answers | The Muse

Ghore Boshe Spoken English Course | Munzereen Shahid | 10 Minute School

আপনার কমেন্ট লিখুন