উপায়গুলো মানলে তবে, Current Affairs-এ পারদর্শী হবে!

পুরোটা পড়ার সময় নেই? ব্লগটি একবার শুনে নাও।

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কিংবা বিসিএস- এরকম অনেক প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার অংশ সাধারণ জ্ঞান। এই সাধারণ জ্ঞানের সিংহভাগই আবার থাকে কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স বা সাম্প্রতিক বিষয়াবলী থেকেশুধু প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষাই নয়, একজন সচেতন ছাত্র ও বিশ্ব নাগরিক হতে হলে তোমাকে সাম্প্রতিক বিষয়াদি সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখতে হবে।

কুইজ, বিতর্ক কিংবা MUN– এসব সহশিক্ষা কার্যক্রমে সাফল্যের জন্যেও এগুলো প্রয়োজনীয়। কিন্তু কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সের প্রতি এক অজানা ভয় আছে অনেকের। সেই ভয়কে জয় করে খুব কম পরিশ্রমেই কিন্তু আমরা পারদর্শী হয়ে উঠতে পারি কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সে।

ball

তবে চলো, জেনে নেই সেই পদ্ধতিগুলো –

১। ফেসবুক:

ফেসবুকে যে পড়াশোনা করা সম্ভব তা আমরা ১০ মিনিট স্কুলের মাধ্যমে দেখিয়ে দিয়েছি অনেক আগেই। ফেসবুকের নিউজফিড স্ক্রল করতে করতে তুমি শুধু মিমিস বা ফুড রিভিউই না, জানতে পারবে গোটা বিশ্বে ঘটে যাওয়া সাম্প্রতিক সব বিষয়াদি সম্পর্কেও। বিশ্বের সব প্রতিষ্ঠিত সংবাদমাধ্যমের রয়েছে ভ্যারিফাইড ফেসবুক পেইজ। এই পেইজগুলো যথেষ্ট অ্যাক্টিভ এবং যেকোনো ব্রেকিং নিউজ কিংবা তাদের গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল তারা তাদের পেইজে শেয়ার করে থাকে।

ব্লগটি পড়া শেষ করে এখনি গিয়ে CNN, BBC, Guardian, Telegraph, Foreign Policy, Huffington Post, New York Times ইত্যাদি পেজে লাইক দিয়ে দিও। তাহলে তোমার নিউজফিডে শুধু বন্ধুদের সুন্দর সুন্দর পোস্টই থাকবে না, এসব পেজের আপডেটও থাকবে যা তোমাকে জানিয়ে দিবে গোটা বিশ্বের কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স।

২। খবরের কাগজ:

কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স জানার জন্য যে পরামর্শ সবচেয়ে বেশি দেয়া হয় তা হল – দৈনিক খবরের কাগজ পড়া। শুনতে অনেক সেকেলে মনে হলেও, এটিই আসলে সবচেয়ে কার্যকর ও সহজ পদ্ধতি। যাদের অভ্যাস নেই সংবাদপত্র পড়ার, ভয় পেয়ো না। তোমাকে অবশ্যই মুখস্ত করার মতো করে পত্রিকা পড়তে হবে না। এছাড়াও প্রতি মাসে বেশ কিছু প্রকাশনী “কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স” বিষয়ক পত্রিকা প্রকাশ করে থাকে। তোমরা চাইলে সেটিও পড়তে পারো।

অনেকে বলতে পারো, “ভাইয়া সাত-সকালে থাকে ক্লাস। আসতে আসতে হয়ে যায় রাত। খবরের কাগজ পড়ার সময় পাবো কই?”। এর সমাধান হলো – আমরা প্রতিদিন বেশ বড় একটা সময় ব্যয় করি ট্রাফিক জ্যামে বসে বসে। জ্যামে বসে থেকেই আমরা পড়ে ফেলতে পারি প্রতিদিনের পত্রিকা। কারণ, দেশের সবগুলো পত্রিকার অনলাইন ভার্সনের সঙ্গে ই-পেপার ভার্সনও রয়েছে।

giphy 1

৩। টিভি ও ইউটিউব:

বাংলাদেশের প্রতিটি চ্যানেল এবং আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম যেমন BBC বা CNN, কয়েক ঘণ্টা পর পরই সংবাদ সম্প্রচার করে থাকে। যেকোনো চ্যানেলের রাতের সংবাদ সারাদিনে দেশে ও বিদেশে ঘটে যাওয়া বিষয়াদি সম্পর্কে তোমাকে ধারণা দিয়ে দিবে। এছাড়াও ব্যস্ততা থাকলে কেবল শিরোনাম বা স্ক্রিনের নিচে দেয়া নিউজ স্ক্রল পড়েও তুমি তা জানতে পারবে।

শুধু টিভি নয়, ইউটিউবকেও তুমি ব্যবহার করতে পারো জানার মাধ্যম হিসেবে। সংবাদ মাধ্যমগুলোর চ্যানেল ছাড়াও অনেক মিডিয়া চ্যানেল রয়েছে যারা সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে ছোট কিন্তু সহজবোধ্য ভিডিও প্রকাশ করে থাকে যেমন – NowThisWorld, Vox ইত্যাদি।

কোনো বিষয়ে আনন্দ পেলে তা আমাদের আগ্রহ বাড়িয়ে দেয় বহুগুণ!

বেশ কিছু স্যাটায়ার পলিটিক্যাল শোও তুমি ইউটিউবে দেখতে পারো যেমন –  Last Week Tonight with John Oliver, The Daily Show with Trevor Noah ইত্যাদি যা তোমাকে আন্তর্জাতিক রাজনীতির কাঠখোট্টা বিষয়ও বিনোদনের সাথে বুঝিয়ে দিবে সহজে।

৪। অ্যাপস:

প্রতিটি বড় সংবাদমাধ্যমেরই রয়েছে আলাদা অ্যাপ যা তুমি অ্যাপ-স্টোর বা প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারো। অ্যাপগুলো নোটিফিকেশন দিয়ে কোনো কিছুই তোমাকে জানাতে দেরি করবে না একদম। এছাড়াও InShort অ্যাপের মাধ্যমে তুমি পাবে সারাদিনের বড় বড় ঘটনাগুলোর সার-সংক্ষেপ। Flipboard বা Feedly অ্যাপে তুমি তোমার পছন্দের ও প্রয়োজনীয় সব ক্যাটাগরির সংবাদ পাবে এক জায়গায়।

৫। গেমস:

কোনো বিষয়ে আনন্দ পেলে তা আমাদের আগ্রহ বাড়িয়ে দেয় বহুগুণ। আর গেমসের মতো মজার বিষয় আর কিই বা আছে! বিখ্যাত কুইজ গেমস QuizUP এর মাধ্যমে আমরা শুধু বিনোদন না, অনেক কিছু শিখতেও পারি। QuizUP এ রয়েছে অনেক টপিক। এর মধ্যে World News টপিকটির প্রশ্নগুলো হয় সাম্প্রতিক বিষয়াবলী নিয়েএছাড়াও বছর শেষে সেই বছরের হাইলাইটগুলো নিয়ে থাকে একটি টপিক।

আরও কিছু উপায়-

Google News এর মাধ্যমে আমরা যেকোনো সংবাদের অনেকগুলো সোর্স একই সাথে পেয়ে যেতে পারি। Google News শুধু অ্যাপ না, সরাসরি কম্পিউটার থেকেও স্বচ্ছন্দে ব্যবহার করা যায়। এছাড়া Wikipedia’Main Page (https://en.wikipedia.org/wiki/Main_Page) এর “In the News” সেকশনে দেখা মিলবে সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া বড় বড় ঘটনাগুলো।

দেখলে! কত সহজেই আমরা জানতে পারি কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স সম্পর্কে। বিশ্ব সম্পর্কে যত জানবে তোমার মানসিকতা ও চিন্তা-ভাবনার জগত হবে ততই বিশাল।

জ্ঞানের সবচেয়ে বড় প্রভাবক হলো কৌতূহল বা Curiosityতাই Stay Curious and Happy Learning!  


১০ মিনিট স্কুলের লাইভ এডমিশন কোচিং ক্লাসগুলো অনুসরণ করতে সরাসরি চলে যেতে পারো এই লিঙ্কে: www.10minuteschool.com/admissions/live/

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: write@10minuteschool.com

আপনার কমেন্ট লিখুন