বাড়াতে হলে মানসিক দক্ষতা

May 3, 2019 ...

“টলার-স্ট্রংগার-শার্পার” এর ট্যাগলাইনটার কথা মনে আছে? হরলিক্সের একটা বিজ্ঞাপনে প্রথম এই ট্যাগলাইনটা ব্যবহার করা হয়েছিলো। তখন ভাবতাম, মগভর্তি হরলিক্স খেলেই চার তলার রিয়াদের চেয়ে অনেক বেশি বুদ্ধিমান হয়ে যাবো! বয়স বাড়ার সাথে সাথে হরলিক্সকে ঘিরে এইসব আজব চিন্তাভাবনাও দূর হতে শুরু করলো। ক্লাস এইট কিংবা নাইনে থাকতে ন্যাশনাল জিওগ্রাফি চ্যানেলে একটা শো শুরু হয়েছিলো, নাম ছিলো “ব্রেইন গেমস।” ব্রেইন গেমসে মানসিক দক্ষতা ব্যাপারটা সম্পর্কে বিভিন্ন মজার মজার তথ্য দেখানো হতো। তখন মনে হতো, ইশ, এরকম দক্ষ হতে হলে বোধহয় অনেক কাঠখড় পোড়াতে হবে।

বাসায় কিছুদিন পরেই ইন্টারনেট সংযোগ নিলাম। এরপর থেকেই ঘাঁটাঘাঁটি শুরু করলাম ব্রেইন স্কিল এর পুরো বিষয়টা নিয়ে। উইকিহাউ থেকে শুরু করে ইউটিউব, সেখান থেকে কখনও কুওরা (Quora), কখনও বা পেপার-পত্রিকা – সবজায়গায় খুঁজতে লাগলাম মস্তিষ্ককে দক্ষ করে তুলতে কী কী দরকার পড়ে। এবং মজার ব্যাপার হচ্ছে, জিনিসটা কিন্তু খুব কঠিন কিছু না। আমাদের চারপাশেই এমন খুঁটিনাটি অনেক কিছু রয়েছে, যা দিয়ে আমরা সহজেই আমাদের মগজটাকে একটু শানিয়ে নিতে পারবো।

ds8TXOnlq6uwpSR9HvJRWfVOYhD1a0jhT33gog7KmEubee87V62m2sPAU2c4V1Zba6FrYRrTmdmTelpr MGuYtnC3pCEVge4U2EpE4OQ mu7ENPdMeJMhpR6Y0RbHHw5GboL Ei2

(Source: Freepik)

সত্যিই কী তাই? দেখা যাক –

১. হোক কিছু শরীরচর্চা

        শারীরিক শিক্ষা বই পড়ার সময় সবসময় মনে হতো “এগুলা পড়ে কী লাভ? এগুলা কি আসলেই কোনো কাজে আসবে?” কিন্তু এখন বুঝতে পারছি, সেই বইগুলো থেকে অনেক কিছু শিক্ষণীয় রয়েছে। তো, যদি জিজ্ঞেস করা হয় যে শারীরিক শিক্ষা বইতে কোন বিষয়টার দিকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়?” তবে হয়তো সবাই এক বাক্যে বলবে “ব্যায়াম।” হ্যাঁ, সত্যিই তাই। শরীর গঠনের পাশাপাশি মস্তিষ্কের জন্যও কিন্তু ভালই কার্যকর এই ব্যায়াম। খুব ভোরে উঠে সামান্য ব্যায়াম আমাদের মস্তিষ্কের নিউরনগুলোর মাঝে ব্যাপক উদ্দীপনা জাগায়। নিমিষেই সেগুলো চাঙা হয়ে ওঠে। এমনকি মেডিটেশনের মত শরীরচর্চাও মস্তিষ্কের দক্ষতা বাড়াতে খুব বেশি সহায়ক।

 

neO DMvWnrkf3E90L Q2 Nrfxr8HfyZxZOAdkI8osue6 sOWKRL5ZkTQPbHnClSujJ6jw0a62Zt5oEz9on3Qo5jUOzShh 9z41fsDgWRSd

(Source: Medium)

        অনেক সময় মনে হতে পারে, শরীরচর্চা কেবল সিক্স প্যাকের স্বপ্নে বিভোর ব্যাক্তিদের জন্যই বর্তমান, মনে হতে পারে যে এরকম কার্যকলাপ বোধহয় মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য কোনোভাবেই কাজে আসবে না এবং এই ধারণাটি সম্পূর্ণ ভুল ! আমাদের মস্তিষ্ক আর ১০টি পেশির মত না হলেও প্রতিনিয়ত আমাদের মস্তিষ্ক শরীরচর্চা থেকে লাভবান হতে পারে। শরীরচর্চার মাধ্যমে আমাদের জ্ঞান-সম্বন্ধীয় স্বাস্থ্যের (cognitive health) এর অনেক উন্নতি সাধন হয়। প্রতিদিনকার শরীরচর্চা আমাদের মস্তিষ্কের কোষগুলোতে উদ্দীপনা দেয়। এর ফলে আমাদের মস্তিষ্কের রক্ত পরিবহন কার্যক্রম আরো বেগবান হয়। মস্তিষ্কে নতুন নতুন নিউরনের তৈরিকরণের মাধ্যমে আমাদের মানসিক দক্ষতাকে বাড়িয়ে তোলে শরীরচর্চা।

২. ব্রেইনকে করো ট্রেইন

PrYHTmmDDnW5X4 40cfyRHtpEOxxaav FC9 GVhYRoR2AG2yG 0pjL6HMnfHAm4ot GWsdLnomvdI5wxgaZ1vcqfPSD9NOvPSXSoATy aKgQDQEYIiuz2J1Mclwm4y2dfCvNtaf

(Source: Research Digest)

        পরিচিত মানুষদের ফোন নাম্বার কি আমরা সহজে ভুলে যাই? দরকারি কাগজপত্রের নাম্বার, পাবলিক পরীক্ষার বিশাল রেজিস্ট্রেশন নাম্বার, ফোনের প্যাটার্ন লক বা পাসওয়ার্ড এর মত কঠিন কঠিন সবকিছু মাথায় মনে থাকে, কিন্তু পরীক্ষার আগের রাতের পড়া মনে থাকেনা কেন? কারণটা ঐ যে- মানসিক দক্ষতার কমতি। বৈজ্ঞানিক গবেষণার মতে, আমরা যখন কোনো বস্তুকে প্রতিদিনই দেখি, সেটা যত বৃহৎ বা ক্ষুদ্রই হোক না কেনো, আমাদের মস্তিষ্ক খুব দ্রুত সেই বস্তুটির আপাদমস্তকের সাথে পরিচিত হয়ে যায়, এবং আমরা চাইলেও সেই বস্তুটিকে ভুলতে পারি না। এভাবে ঐ বস্তুটি সম্পর্কিত যেকোনো কিছু আমাদের মস্তিকের আয়ত্তে চলে আসে এবং দ্রুতই মানসিক দক্ষতা বৃদ্ধি পায়। তাই পড়াশুনার ক্ষেত্রে মানসিক দক্ষতা বৃদ্ধির উপায়টা তো এতক্ষণে বুঝেই গিয়েছো আশা করি।

দেখে নাও ছাত্র অবস্থায় টাকা উপার্জন করার কিছু উপায়!

 

        বিজ্ঞানের ভাষায় একে বলা হয় ভিজুয়ালাইজেশন বা চাংকিং (Visualization/Chunking) । শব্দ মনে রাখার প্রক্রিয়া হলো ভিজুয়ালাইজেশন ও সংখ্যা মনে রাখার প্রক্রিয়া হলো মূলত চাংকিং। আমরা কোনো বস্তুকে বা লেখাকে যতবার চোখের সামনে দেখবো, আমাদের মস্তিষ্কের ভিজুয়ালাইজেশন ক্ষমতা ঠিক ততই বাড়তে থাকবে এবং আমরা তত দ্রুত ও সাবলীলভাবে ঐ বস্তুকে মনে রাখতে পারবো।

৩. বাদ্যযন্ত্রের কারিকুরি

        দুই হাতে ড্রামের দুইটি স্টিক, এক পায়ে বেস ড্রাম ও অন্য পায়ে ডাবল হাই হ্যাটস এর কারসাজি- হ্যাঁ, শরীরের ঠিক এতগুলো জিনিসকেই গানের সুরের সাথে নড়াচড়া করলেই বেজে উঠে অসম্ভব সুন্দর এক বিট। কিন্তু জিনিসটা বলতে যতটা সহজ, বাস্তবেও কি ততটাও সহজ? মোটেই না। ইচ্ছা করলেই যেমন ডানহাতি লেখকেরা বাম হাতে লিখতে পারে না, ঠিক সেভাবে এতগুলো হাত পা নড়াচড়া করলেই ঠিকমত ড্রাম বাজানো যায় না। তবে কি এইসব বাদ্যযন্ত্রবাদকেরা অতিমানব? আবারও, মোটেই না। বাদ্যযন্ত্র বাজানোও কিন্তু মানসিক দক্ষতা বাড়ানোর দারুণ এক কৌশল। আজকাল অনেকেই গিটার বাজাচ্ছে, কেউ কেউ পিয়ানো, আবার অনেকে কাহন-ড্রামস-বাঁশি। এসব যন্ত্র বাজাতে আমাদের মস্তিষ্কের অনেকাংশকেই একাগ্র করতে হয়। এর ফলে খুব দ্রুতই মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা বেড়ে যায়, বাড়ে মানসিক দক্ষতা

        তোমাদের অনেকের হয়তো জানা আছে যে আমাদের মস্তিষ্ক ২ ভাগে বিভক্ত- একটি হলো ডান হেমিস্ফিয়ার (Right Hemisphere) এবং অন্যটি হলো বাম হেমিস্ফিয়ার (Left Hemisphere) । এখন এই দু’টি অংশের কাজ রীতিমত পুরোপুরি উল্টো স্বভাবের। কিরকম? আমাদের মস্তিষ্কের ডান হেমিস্ফিয়ার আমাদের দেহের বাম অংশকে নিয়ন্ত্রণ করে এবং ঠিক তেমনি আমাদের মস্তিষ্কের বাম হেমিস্ফিয়ার আমাদের দেহের ডান অংশকে নিয়ন্ত্রণ করে। এজন্য যারা ডানহাতি, তাদের মস্তিষ্কের বাম হেমিস্ফিয়ার শক্তিশালী, তেমনি বামহাতিদের জন্য বেশি শক্তিশালী তাদের ডান হেমিস্ফিয়ার। মস্তিষ্কের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য আমাদের দেহের মস্তিষ্কের ২টি অংশকেই সমানভাবে শক্তিশালী করার জন্য কাজ করতে হবে। বাদ্যযন্ত্র বাজাতে কিন্তু আমাদের দেহের দু’টি হাতই সমানতালে কার্যকর রাখতে হয়। তাই বাদ্যযন্ত্রের মত দু’হাত দিয়ে ব্যবহার করা যন্ত্রগুলো আমাদের মস্তিষ্কের দক্ষতা বাড়াতে সহায়তা করে।

 

FhZP8D29dJMpbiBvWUb89QBho3M9sY fcF CzmLVr4R8ckpXXwu05SZ7PqMH8gtFhfxvug5tdOcIVR1JzCXvT grOgQeUggN 0gHhsg5q30ET vva uIZZU UkGp2fPSbonqDtQG

(Source: Pinimg)

৪. মিলিয়ে নাও পাজল

        ছোট্ট শিশুদের লেগো ব্লক এর খেলনাগুলো কিনে দেয়া হয় কেনো জানো? লেগো খেলনাগুলোর একটা বিশেষত্ব আছে, প্রতিটি লেগোই অন্যটির সাথে জোড়া লাগানো সম্ভব। কয়েকটি লেগো ব্লক জোড়া লাগিয়ে নানা বস্তু আকার দেয়া যায়। ছোট শিশুদের মাথায় হাজারো কল্পনা থাকে। তাদের সামনে লেগো হাজির করে দিলে তারা লেগো জোড়া লাগিয়ে তাদের মাথার কল্পনার খেলনা গাড়িটিকে বাস্তবে রূপ দিতে চায়।

 

        ছোট বাচ্চাদের মত নিশ্চয়ই আমরা লেগো জোড়া লাগাতে ব্যস্ত হয়ে পড়বো না। তবে, মানসিক দক্ষতা বাড়াতে উপকারী হতে পারে বিভিন্ন পাজল, হতে পারে সুডোকু কিংবা ক্রসওয়ার্ড। দৈনিক পত্রিকাগুলোর কমবেশি সবগুলোতেই প্রতিদিন হরেক রকম পাজল দেয়। সুডুকোর মত পাজল গণিতে যেমন স্কিলফুল হতে সাহায্য করে তেমনি ক্রসওয়ার্ড এর মত পাজলগুলো তোমার মস্তিষ্ককে নানাভাবে চিন্তা করতে সহায়তা করবে। সবমিলিয়ে বাড়বে তোমার মানসিক দক্ষতা। 

Z95O

(Source: Illustration source)

বিজ্ঞানীরা মানসিক দক্ষতা নিয়ে প্রায়ই হাজার রকমের গবেষণা করেন। কখনও কখনও তারা সুস্থ মানুষের মস্তিষ্কের বিভিন্ন গতিবিধি পর্যালোচনা করেন, কখনও বা মানসিক ভারসাম্যহীন মানুষদের নিয়ে, সমাজের কাছে যারা “পাগল” নামে পরিচিত। জাপানিজ রিসার্চার ইউশিরো সুতসুমির মতে,

“মানসিক দক্ষতা বাড়ানো খুব একটা কঠিন কিছু নয়, বরং ছোট ছোট কয়েকটি দৈনন্দিন কাজই মানুষকে করে তুলবে অন্যদের চেয়ে অনেক বেশি দক্ষ।” 

মানসিক দক্ষতা বাড়ানোর এরকম কয়েকটি সহজ উপায় হচ্ছে-

  • ভোকাবুলারি বা শব্দ সম্ভারের জ্ঞান আরো সমৃদ্ধ করা। বই পড়া হচ্ছে মানসিক দক্ষতা বাড়ানোর অন্যতম সেরা উপায়। কিন্তু সত্যি কথা এই যে, হাজারো কাজের ভিড়ে আমাদের অনেকেরই বই পড়ার সময় হয় না। তাই একান্তই বইয়ের রাজ্যে ডুব দেয়া সম্ভব না হলেও আমরা আমাদের মস্তিষ্কে ভাষার শব্দসম্ভারকে বাড়িয়েও মানসিক দক্ষতা বাড়াতে পারি।
  • শর্ট টাইম মেমোরির ভয়াল থাবা থেকে বাঁচতে বেশি বেশি ভিজুয়ালাইজেশন করতে হবে।
  • “বাবার হইলো একবার জ্বর সারিলো ঔষধে”- এই শর্টকাটটি দিয়ে আমরা মোঘল সম্রাটদের নাম পর্যায়ক্রমে মনে রাখতাম, তাই না? মানসিক দক্ষতা বাড়ানোর আরো একটি সহজ উপায় হচ্ছে শর্টকাট। আমরা যখন কোনো স্মৃতিকে মনে রাখার কঠিন চেষ্টা করি, তখন শর্টকাট উপায় খুব কাজে দিবে। কঠিন সব বিষয়বস্তুকে পরাজিত করে মস্তিষ্কের দক্ষতা বাড়াতে শর্টকাটের জুড়ি নেই।
  • মানসিক দক্ষতা বাড়ানোর একটা মজার খেলা রয়েছে। এই লেখাটি পড়ার পর তুমি এমন কিছুর ভবিষ্যদ্বাণী করবে, যার ফলাফল তুমি পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই পেয়ে যাবে। সেটি হতে পারে একটি ফুটবল ম্যাচ, স্কুলের কোনো পরীক্ষার নম্বর কিংবা পছন্দের সিনেমার বক্স অফিস র‍্যাংকিং। এ ধরণের প্রেডিকশনের কিছুটা আমাদের মস্তিষ্কের কল্পনাশক্তির উন্নয়ন ঘটায়, বাকি অংশ আমাদের মানসিক স্বাস্থ্যকে দক্ষ হওয়ার দিকে মন্ত্রনা দেয়া। মনোবিদ জুডি উইলিস এর মতে, “তুমি যদি সঠিক হও, তাহলে তুমি সফলতার অনুভূতি পাবে। আর যদি তুমি ভুল করে ফেলো, তবে তোমার মস্তিষ্ক তার উপসংহার লিখতে সক্ষম হবে এবং তুমি নতুন কিছু শিখতে পারবে।”

মানসিক দক্ষতা বৃদ্ধির সম্পূর্ণ ব্যাপারটাই নির্ভর করে ফোকাস বা কোনো জিনিসের প্রতি নিবিড় মনোনিবেশ করার উপর। আমাদের ছোট্ট এই মস্তিষ্ক হাজারো কম্পিউটারের সমান তথ্য ধারণ করতে পারে। অথচ এই মস্তিষ্ককে দক্ষ করে তুলতে দরকার শুধু সামান্য কয়েকটি পদক্ষেপ। মানসিক দক্ষতা বাড়াতে আশা করি লেখাটি দারুণ সহায়ক হবে।

তথ্য সংগ্রহ:

https://us.humankinetics.com/blogs/excerpt/learn-different-practices-to-help-improve-mental-skills

https://www.forbes.com/sites/groupthink/2013/12/03/5-powerful-exercises-to-increase-your-mental-strength/#40b467024cda

https://www.quora.com/What-are-the-good-ways-to-improve-mental-ability-and-think-faster


১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: write@10minuteschool.com

আপনার কমেন্ট লিখুন