অকারণে মানসিক অশান্তি? সমাধান দিচ্ছেন দালাই লামা!

Sadia is currently a student of finance department, University of Dhaka. This quiet person can prove herself as a big sister or a best friend whenever you're in need.

পুরোটা পড়ার সময় নেই ? ব্লগটি একবার শুনে নাও !

মানুষের মন এক আজব জিনিস! কথা নেই বার্তা নেই হঠাৎ করেই খারাপ হয়ে যায়, সাথে সাথেই শুরু হয় অবসাদ। কিন্তু কিছু পন্থা রয়েছে যেগুলো অনুসরণ করলে এই অবসাদ থেকে অনেকটা রেহাই পাওয়া যায়। এমনই দশটি পন্থার কথা El Mundo Del Yoga (The world of yoga) নামক এক সংস্থাকে বলেছেন ১৪তম দালাই লামা। সেই দশটি পন্থাই এখন বলতে যাচ্ছি।

১। ওয়াদা পালন করুন

আমরা অনেকেই ঝোঁকে পড়ে অনেক রকমের ওয়াদা করে ফেলি যা পরবর্তীতে রক্ষা করা সম্ভব হয় না এবং এই ব্যাপারটা আমাদের মাঝে অস্বস্তির সৃষ্টি করে। তাই কাউকে কথা দেয়ার আগে নিজের সামর্থ্যের কথা খেয়াল রাখতে হবে এবং তা পালনের চেষ্টা করতে হবে।

২। খারাপ সঙ্গ থেকে দূরে থাকুন

নেতিবাচক মানসিকতা এবং আচরণের মানুষের মাঝে থাকলে তা অচিরেই আমাদের উপর প্রভাব ফেলে। তাই মিশতে হবে সবসময় উদার চিন্তা-ভাবনা সম্বলিত মানুষের সাথে।

৩। ঋণ যত তাড়াতাড়ি সম্ভব শোধ করে দিন

কারো কাছে যেকোন কিছু নিয়ে ঋণী থাকলে তা আমাদের মাঝে এক ধরণের হীনমন্যতা এবং মানসিক অশান্তির সৃষ্টি করে। তাই ঋণগুলো যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পরিশোধ করে দিতে হবে। 

৪। ক্ষমা করতে শিখুন

মহৎ মানুষদের সবচেয়ে বড় গুণ হচ্ছে, তারা ঘোর শত্রুকেও ক্ষমা করে দিতে জানেন। মানুষ মাত্রই ভুল করবে। কেউ যদি ভুল করে তা নিয়ে অনুশোচনায় ভোগে, তবে তাকে ক্ষমা না করার মাঝে কোনো মহত্ব নেই বরং এতে করে দুইজনই মানসিকভাবে কষ্টে থাকে। তাই মানুষকে ক্ষমা করার এই মহৎ গুণটা রপ্ত করে ফেলতে হবে। এমনও যদি হয় যে, কেউ কোন ক্ষমার অযোগ্য ভুল করে ফেলেছে, তারপরেও অন্তত নিজের শান্তির জন্য হলেও তাকে ক্ষমা করে দিতে হবে।

 
আর হবে না মন খারাপ!

আমাদের বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের একটা বড় সমস্যা হতাশা আর বিষণ্ণতা।

৫। তাই করুন যা আপনি করতে ভালবাসেন!

বিশ্বে সবকিছুই যে আমরা লাভের জন্য করবো এমনটা কিন্তু নয়। এমন অনেক কাজ রয়েছে যা করলে আমাদের লাভ কিংবা ক্ষতি হয় না। কিন্তু তারপরেও আমরা সেগুলো করতে ভালবাসি। নিজেকে ভাল রাখার জন্য এ ধরণের কাজগুলো বেশি করে করতে হবে।

৬। সব কাজ নির্দিষ্ট সময়মতো করতে হবে

প্রয়োজনীয় সব কাজগুলো নির্দিষ্ট এবং উপযুক্ত সময়ে করতে হবে। একটা কাজ করতে গিয়ে আরেকটা কাজের সময় নষ্ট করলে তাতে কোন কাজই ঠিকমত হয় না বরং তা শুধু ঝঞ্ঝাট বৃদ্ধি করে।

৭। বিশৃঙ্খলা পরিহার করুন

ঘরে বাইরে যে কোন জায়গা সবসময় গুছিয়ে রাখুন, যেকোন কাজ সবসময় গুছিয়ে করুন। এতে করে কাজ করতে ভাল লাগবে, কাজের ফলও ভাল আসবে।

৮। প্রতিকূলতাকে মেনে নিন

জীবনে প্রতিকূলতা থাকবেই। সাময়িকভাবে এই প্রতিকূলতাকে পরিহার করা গেলেও আমরা কেউই এর থেকে পুরোপুরি দূরে থাকতে পারি না বরং প্রতিকূলতা থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে চলতে গেলে তা আরো বেশি করে আমাদের পিছু নেয়। তাই প্রতিকূলতাকে জয় করেই সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

৯। স্বাস্থ্যের দিকে খেয়াল রাখুন

আপনার আশেপাশের সব যদি আপনার অনূকুলে থাকে, তারপরও আপনি কোন কাজেই মন বসাতে পারবেন না যদি না আপনার শরীর সুস্থ থাকে। তাই শারীরিক সুস্থতাকে প্রায়োরিটি লিস্টের সবচেয়ে উপরে রাখুন।  

গ্রাফিক্স ডিজাইনিং, পাওয়ারপয়েন্ট প্রেজেন্টেশান ইত্যাদি স্কিল ডেভেলপমেন্টের জন্য 10 Minute School Skill Development Lab নামে ১০ মিনিট স্কুলের রয়েছে একটি ফেইসবুক গ্রুপ।

১০। জীবনকে তার মত করে চলতে দিন

আমাদের জীবনটা কিন্তু নদীর স্রোতের মত, আপনি তাকে যতই আটকানোর চেষ্টা করেন না কেন, সে তার নিজের মত করেই চলে যাবে। তাই জীবনকে নিয়ে অভিযোগ করা বন্ধ করুন। জীবন যেমনই হোক না কেন, তাকে মেনে নিন। মনে রাখুন, ‘জীবন নদীর স্রোতের মত হলেও বৈঠাটা কিন্তু আপনার হাতেই’।

তো এই ছিল দালাই লামার বলা আমাদের মানসিক অশান্তি দূর করার দশটি পন্থা। এরপরে যখনই আপনার অকারণে মন খারাপ থাকবে তখনই এই দশটা পয়েন্টের কথা যদি চিন্তা করে দেখেন যে, কোনটা ছুটে গেল কিনা, তাহলেই আপনি আপনার মানসিক অশান্তি অনেকটা হলেও দূর করতে পারবেন বলে আশা করা যায়। শেষ করছি দালাই লামার প্রখ্যাত একটি উক্তি দিয়েঃ

Happiness is not something ready-made. It comes from your own actions.


১০ মিনিট স্কুলের লাইভ এডমিশন কোচিং ক্লাসগুলো অনুসরণ করতে সরাসরি চলে যেতে পারো এই লিঙ্কে: www.10minuteschool.com/admissions/live/

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: [email protected]

লেখাটি ভালো লেগে থাকলে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে ভুলবেন না!
What are you thinking?

GET IN TOUCH

10 Minute School is the largest online educational platform in Bangladesh. Through our website, app and social media, more than 1.5 million students are accessing quality education each day to accelerate their learning.