English পড়তে দক্ষ হয়ে ওঠো এখনই!

February 10, 2018 ...

ইংরেজি আমাদের অনেকের কাছেই আতঙ্কের নাম। Grammar তো তাও কোনমতে কলেজের গন্ডি পার হলে অত প্যারা দিতে পারে না, কিন্তু reading comprehension তো কলেজের গন্ডি পর্যন্তই সীমাবদ্ধ নয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের সব বইই যে ইংরেজিতে! সেটা তো পিছু ছাড়ছেই না, তাহলে উপায় কী?

উপায় একটাই, আর তা হল, reading comprehension এ নিজেকে দক্ষ করে তোলা। Reading comprehension-এ দক্ষতা মানে শুধু লেখক তার লেখায় কী বলছে সেটা বুঝতে পারাই নয়, যদি সেটির কোন লুকোনো অর্থ থাকে সেটিও বুঝতে পারা।

কোন কিছুই হুট করে হয়ে যায় না। তেমনি reading comprehension-এ দক্ষতা বাড়ানো এক দিনের কাজ নয়। এই কাজে আমাদের সাহায্য করে ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে শুরু করে কলেজ পর্যন্ত পড়ানো ইংরেজি প্রথম পত্র বই।

এই বইগুলোতে খুব সহজ ভাষায় কিছু paragraph বা passage থাকে। এই paragraph-গুলো একটু প্যারা দিলেও এগুলো হতে পারে আমাদের reading comprehension এ দক্ষতা বাড়ানোর অন্যতম হাতিয়ার।

এগুলোর সহজ ভাষা যেমন আমাদের সহজেই বোধগম্য হয় তেমনি এগুলো আমাদের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতেও সহায়তা করে। ফলে ষষ্ঠ শ্রেণি থেকেই আমরা reading comprehension-এ দক্ষতা বাড়ানোর অনুশীলন শুরু করতে পারি।

এর পাশাপাশি কিছু নিয়ম মেনে অনুশীলন করলে আমাদের reading comprehension-এ দক্ষতা বাড়ানোর চেষ্টাটি দ্রুত আর সহজ হয়ে যায়। চল দেখে আসি সেই নিয়মগুলো।

১। জোরে জোরে পড়:

ছোটবেলায় যখন paragraph, essay বা application মুখস্ত করতে যেতাম, আম্মু বলতেন জোরে জোরে পড়তে। কারণ জোরে জোরে পড়লে নাকি নিজের পড়াটা কানে ঢুকে আর তাই বেশি মনে থাকে। জানিনা কথাটা কতটুকু সত্য, তবে জোরে জোরে পড়ার সুফল আসলেই পেয়েছি।

কোন কিছু পড়ার চেয়ে দেখলে তা বেশি মনে থাকে তা আমরা সবাই জানি

পড়ার সময় জোরে জোরে পড়লে পড়াটা বেশিক্ষণ মস্তিষ্কে গেঁথে থাকে। আর সেজন্য লম্বা সময় ধরে পড়ার ক্ষেত্রে জোরে জোরে পড়াটা আগের তথ্যগুলো মনে রাখতে সহায়তা করে।

২। নিজের জীবনের কোন ঘটনার সাথে সম্পর্ক তৈরি কর:

কোন কিছু পড়ার সময় পড়ার পাশাপাশি নিজের জীবনের কোন ঘটনার সাথে সেটিকে মেলানোর চেষ্টা কর। তাহলে দেখবে ওই পড়ায় একঘেয়েমি থাকবে না। যেমন- স্কুলের বা কলেজের প্রথম দিন সম্পর্কে পড়তে গেলে নিজের স্কুলের বা কলেজের প্রথম দিন নিয়ে ভাবো। তাহলেই দেখবে আর পড়তে একঘেয়েমি লাগছে না বরং বেশ মজাই পাচ্ছ।

1 3

তবে খেয়াল রেখ যেন মেলাতে গিয়ে বেশি নস্টালজিক হয়ে যেন না পড়। কারণ পুরোটা পড়তে এখনো বাকি!

৩। কল্পনাশক্তি বাড়াও:

কোন কিছু পড়ার চেয়ে দেখলে তা বেশি মনে থাকে তা আমরা সবাই জানি। কিন্তু reading comprehension-এ তো পড়তেই দেবে, দেখার কোন উপায় নেই, তাহলে কী করবে?

এজন্যই কল্পনাশক্তি বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। পড়তে পড়তে তার সাথে ওই ঘটনাটির একটি ছবি মনে মনে কল্পনা করে নাও। এটি দেখে দেখে মনে রাখার মতই কাজে দেবে। আর সেই সাথে পড়াটা আরো আনন্দদায়ক হয়ে যাবে।

৪। গুরুত্বপূর্ণ জিনিসগুলো চিহ্ন দিয়ে রাখ:

পড়তে পড়তে যে জিনিসগুলো গুরুত্বপূর্ণ মনে হবে তা কোন চিহ্ন দিয়ে রাখলে পড়ার শেষে সেগুলোর উপরে সহজেই চোখ বুলিয়ে নেয়া যায়। এতে করে গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলো বেশি মনে থাকে।

মজায় মজায় ইংরেজি শিখ!

তোমার স্বপ্নের পথে পা বাড়ানোর ক্ষেত্রে তোমার ইংরেজির জ্ঞান কার্যকরী ভূমিকা রাখতে পারে!

তাই আর দেরি না করে, আজই ঘুরে এস ১০ মিনিট স্কুলের এই এক্সক্লুসিভ প্লে-লিস্টটি থেকে!

১০ মিনিট স্কুলের ইংরেজি ভিডিও সিরিজ

চিহ্ন না দিয়ে রাখলে পরে আবার ওই গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলো খুঁজতে খুঁজতেই বিরক্ত হয়ে যাবে। ফলে পড়ার যেই সুফলটা পাবার কথা ছিল তা আর পাবে না।

৫। বার বার পড়:

আমরা অনেকেই একবার পড়ে ভাবি যে পড়া হয়ে গেছে। কিন্তু বেশিরভাগ সময় দেখা যায় যে প্রথমবারের পড়ায় কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য কোন কারণে বাদ পড়ে যায় বা খেয়াল করা হয় না যা দ্বিতীয়বারের পড়ায় ধরা পড়ে। তাই তুমি যদি মনে কর যে একবার পড়েই হয়ে যাবে, তাহলে ভুল ভাবছ।

প্রথমবারের পড়ায় কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ফসকে যায় কারণ প্রথমবারে পুরোটাই আমাদের অপরিচিত থাকে। তাই মস্তিষ্ক ব্যস্ত থাকে সব তথ্য সংগ্রহ করতে। এই কারণে কিছু কিছু তথ্য ফসকে যায়।

দ্বিতীয়বার পড়ায় অপরিচিত তথ্য অনেক কম থাকে, তাই মস্তিষ্কের পক্ষে সহজ হয় সেই ফসকে যাওয়া তথ্যগুলো খুঁজে পেতে এবং সেগুলো সংরক্ষণ করে রাখতে।

এছাড়াও একাধিকবার পড়লে পড়ায় দ্রুততা আসে।

2 1

৬। সঠিক বই বাছাই কর:

পড়ার দ্রুততা এবং দক্ষতা বৃদ্ধি করার জন্য যদি তুমি পাঠ্যবইয়ের paragraph-গুলোর পাশাপাশি অন্য কোন বই পড়তে চাও তাহলে প্রথমেই তোমাকে সঠিক বই বাছাই করতে হবে। সঠিক বই বাছাই করতে হলে দুটি জিনিসের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে।

ক) তোমার আগ্রহ কিসে:

এটি মাথায় রাখতে হবে যে তোমার আগ্রহ কোন বিষয় পড়ায়। যেটি তোমার আগ্রহের বিষয় সেটি পড়তে তুমি বেশি মজা পাবে। এর ফলে তোমার আকর্ষণটা থাকবে পড়ায়। আর তা না হলে দেখা যাবে যে পড়তে ভালো লাগছে না। ফলে পড়ার মূল উদ্দেশ্যটাই ব্যাহত হবে।

খ) কত কঠিন ইংরেজি তুমি পড়তে পার:

বই বাছাই করার সময় আর যেই জিনিসটি খেয়াল রাখা উচিত তা হল ইংরেজিতে তোমার দক্ষতা কতটুকু। যদি তুমি বেশি কঠিন ইংরেজি পড়তে না পার কিন্তু reading comprehension-এ দক্ষতা বাড়ানোর জন্য এমন বই পড় যেটি খুব কঠিন ইংরেজিতে লেখা তাহলে বেশিক্ষণ পড়া চালিয়ে যেতে পারবে না।

যদি পড়তেও পারো অনেকক্ষণ তবু দেখবে মনোযোগ থাকবে না। ফলে reading comprehension-এ দক্ষতা বাড়ানোর ইচ্ছাটি ইচ্ছাই থেকে যাবে।

৭। হাল ছেড়ো না:

আগেই বলেছি যে কোন কিছুই হুট করে হয় না। তেমনি একদিনে তুমি ইংরেজি পড়ায় অনেক দক্ষ হয়ে যেতে পারবে না। এটি একটি সময়সাপেক্ষ এবং কষ্ট সাপেক্ষ ব্যাপার। আর তাই বার বার হাল ছেড়ে দিতে ইচ্ছে হবে। কিন্তু যদি তুমি মনের কাছে হেরে হাল ছেড়ে দাও তাহলে reading comprehension-এ দক্ষতা বাড়ানোর স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে।

তাই হাল না ছেড়ে ধীরে ধীরে চেষ্টা করে যাও। দেখবে তোমার reading এর দক্ষতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

Reading skill খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি দক্ষতা যেহেতু ইংরেজি এখন সর্বত্র সমাদৃত। যেখানেই যাও না কেন, ইংরেজি থেকে মুক্তি পাওয়ার কোনই উপায় নেই। আর তাই ইংরেজির সাথে নিজেকে মানিয়ে নেয়াই উচিত। তাই না?


১০ মিনিট স্কুলের লাইভ এডমিশন কোচিং ক্লাসগুলো অনুসরণ করতে সরাসরি চলে যেতে পারো এই লিঙ্কে: www.10minuteschool.com/admissions/live/

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল করো এই ঠিকানায়: write@10minuteschool.com

আপনার কমেন্ট লিখুন