লাইফ হ্যাকস, বিবিধ

নতুন স্কুলে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারবে তুমিও!

পুরোটা পড়ার সময় নেই? ব্লগটি একবার শুনে নাও।

আমাদের অনেক সময়ে নানান কারণে স্কুল পরিবর্তন করতে হয়। হতে পারে সেটা অভিভাবকের চাকরির কারণে, কিংবা অন্যান্য ব্যক্তিগত কারণে। ছোটবেলা থেকে যে স্কুলে পড়ে অভ্যস্ত সেখানকার পরিবেশ, শিক্ষক, বন্ধু এমনকি স্কুলের কর্মীরাও অত্যন্ত আপন হয়ে ওঠে। যার কারণে নতুন স্কুলে বদলি হওয়ার পর আমরা অনেকেই মানিয়ে নিতে পারি না নতুন পরিবেশের সাথে।

নতুন কোনো জায়গায় খাপ খাইয়ে নেয়াটা সহজ কোনো কাজ নয় অনেকের জন্যই, বিশেষ করে অন্তর্মুখী ছেলে-মেয়েদের জন্য। এজন্য হতাশ হওয়া যাবে না। অবশ্যই নিজেকে সময় দিতে হবে এবং কিছু ছোটখাটো কৌশল অবলম্বন করে এগিয়ে যেতে হবে।

এবার ঘরে বসেই হবে মডেল টেস্ট! পরীক্ষা শেষ হবার সাথে সাথেই চলে আসবে রেজাল্ট, মেরিট পজিশন। সাথে উত্তরপত্রতো থাকছেই!

১। নতুন স্কুল সম্পর্কে খুঁটিনাটি বিষয় জানা

ধরো, তুমি নতুন কোনো স্কুলে ভর্তি হতে যাচ্ছো। এক্ষেত্রে, তোমার প্রথম কাজ হবে একটি দিন হাতে সময় নিয়ে অভিভাবকের সাথে ঐ স্কুলটায় ঘুরে আসা। কতগুলো বিল্ডিং আছে, তোমার ক্লাস রুম কোথায়, মাঠ আছে কিনা, খেলার কী কী ব্যবস্থা আছে, শিক্ষকদের রুম কোথায় অবস্থিত ইত্যাদি খুঁটিনাটি বিষয় নিজ চোখে দেখে আসো। এতে করে তোমার আত্মবিশ্বাস বাড়বে এবং ভেতরের ভয় অনেকটাই কমে যাবে।

 

পাশাপাশি শ্রেণিশিক্ষক এবং অন্যান্য বিষয়ের শিক্ষকদের সাথে কথা বলা, তাদের নাম জেনে নেয়া, কে কোন বিষয় পড়িয়ে থাকেন এসব আলোচনা করে আসা ভালো। এতে করে সহজেই নতুন পরিবেশে খাপ খাইয়ে নিতে পারবে।

২। প্রথম ক্লাসের জন্য সঠিক পূর্বপ্রস্তুতি নেয়া

নতুন স্কুলের প্রথম ক্লাসের আগের রাতে ব্যাগ গুছিয়ে রাখার সময়ে খেয়াল রাখতে হবে যেন কোনো কিছু বাদ না পড়ে। সম্ভব হলে অন্তত একবার স্কুলের হ্যান্ডবুক পড়ে নিতে হবে, যাতে স্কুলের নিয়ম-কানুন সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যায়। চেষ্টা করতে হবে ব্যাগ, ইউনিফর্ম সময়মত গুছিয়ে তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়ার। এতে করে সকালে সময়মত উঠতে পারবে এবং তাড়াহুড়ো করে ক্লাসে গিয়ে দিনটা মাটি হবে না।

ঘুরে আসুন: Google Keep এর ১০টি দারুণ সেবা!

প্রথম দিন হাতে সময় নিয়ে ক্লাসে পৌঁছানোর একটি বিশেষ সুবিধা আছে বলা যায়। এতে করে তুমি ক্লাসের অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে পরিচিত হওয়ার সু্যোগ পাবে, পাশাপাশি ক্লাস শুরুর আগেই নতুন বন্ধু বানিয়ে নিতে পারবে। ফলে প্রথম ক্লাসে নিজেকে আর একা মনে হবে না।   

জেনে নাও জীবনকে উপভোগ করার উপায় !

জীবনে সহজ ভাবে চলার জন্য জানা দরকার কিছু লাইফ হাক্স।

দেখে নাও আজকের প্লে-লিস্টটি আর শিখে নাও কিভাবে সাফল্য পাওয়া যায়!

১০ মিনিট স্কুলের Life Hacks সিরিজ

৩। নিজেকে অন্যের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার কৌশল অনুশীলন করা  

আমরা অনেক সময়ে বুঝে উঠতে পারি না নতুন পরিচয় হওয়ার সময়ে কাউকে কী বলতে হবে। তাই প্রথম ক্লাসে যাওয়ার আগেই ঠিক করে নিতে হবে কীভাবে অন্যদের কাছে নিজেকে তুলে ধরবে কিংবা কী ধরণের প্রশ্ন করবে। হতে পারে সেটা স্কুল বিষয়ক কোনো তথ্য জেনে নেয়া, কারও প্রশংসা করা কিংবা সরল কিছু প্রশ্ন করার মাধ্যমে।

তুমি যদি ভালো আঁকতে পারো তবে আর্ট ক্লাবে অংশ নিতে পারো

প্রথম পরিচয়ে খুব ব্যক্তিগত প্রশ্ন করাটা বেমানান দেখায়। প্রয়োজন হলে ঘরে বসে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে কিংবা ভাই-বোনের সাথে অনুশীলন করে নিতে পারো। অবশ্যই হাসিমুখে কথা বলার অভ্যাস করতে হবে কেননা হাসিখুশি মানুষকে সবাই পছন্দ করে, সহজে আপন করে নেয়।

৪। বিভিন্ন ক্লাবের কাজে অংশ নেয়া

বর্তমানে প্রায় সব স্কুলেই বিজ্ঞান ক্লাব, বিতর্ক ক্লাব, কুইজ ক্লাব, সাংস্কৃতিক ক্লাব কিংবা স্পোর্টস ক্লাব ইত্যাদি রয়েছে। এ ধরনের ক্লাবগুলোতে অংশ নিয়ে ক্লাবের কাজে সক্রিয় হতে পারো। এতে করে তুমি তোমার মত একই বিষয়ে পারদর্শী কিংবা একই ধরণের শখ লালনকারী প্রচুর মানুষের সাথে বন্ধুত্ব করার সুযোগ পাবে।

ঘুরে আসুন: পরীক্ষার হলে যে ১০টি ভুল এড়িয়ে চলা উচিৎ

যেমন, যদি তুমি বিতর্ক শিখতে ইচ্ছুক হও তবে বিতর্ক ক্লাবে অংশ নিতে পারো। ক্লাবের কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে প্রচুর বিতার্কিক বন্ধু পাবে যাদের কাছ থেকে বিতর্কের খুঁটিনাটি শিখে নিতে পারবে। আবার তুমি যদি ভালো আঁকতে পারো তবে আর্ট ক্লাবে অংশ নিতে পারো। এখানে অনেক মানুষকে তুমি নিজে আঁকা শেখাতে পারবে পাশাপাশি নিজের প্রতিভা বিকশিত করতে পারবে কাজের মাধ্যমে।    

ব্লগটা পড়তে পড়তে চল খেলে আসি সংখ্যা নিয়ে কিছু ব্রেইন টিজার গেইম!

৫। অভিভাবকের সাথে শেয়ার করা

নতুন স্কুলে খাপ খাইয়ে নেয়ার সময়ে অনেক অপ্রীতিকর ঘটনা যেমন ঘটতে পারে, তেমনি আবার অনেক আনন্দের ঘটনাও স্মৃতির পাতায় জমা শুরু হতে পারে। সত্যি বলতে, খাপ খাইয়ে নেয়ার ব্যাপারগুলো সহজ হয়ে উঠবে যদি তুমি প্রতিদিনের ঘটনাগুলো অভিভাবকের সাথে শেয়ার করো। চেষ্টা করবে প্রতিদিনের অন্তত একটি করে ভালো ঘটনা বাবা-মাকে শেয়ার করতে, সেটা যত ছোট ব্যাপারই হোক না কেন।

যেমন, নতুন কারো সাথে পরিচয় কিংবা পরীক্ষায় ভালো নম্বর পাওয়া। আবার সেটা হতে পারে কোনো বন্ধুকে সাহায্য করার কিংবা কোনো বন্ধু থেকে সাহায্য পাবার ঘটনা। এভাবে প্রতিদিন একটি করে ভালো ঘটনা বলার ফলে দিন শেষে তুমি অনুধাবন করতে পারবে এই নতুন পরিবেশে ভালো থাকার কত উপকরণ ছড়িয়ে রয়েছে আশেপাশে।


১০ মিনিট স্কুলের লাইভ এডমিশন কোচিং ক্লাসগুলো অনুসরণ করতে সরাসরি চলে যেতে পারো এই লিঙ্কে: www.10minuteschool.com/admissions/live/

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: [email protected]