প্লে স্টোরে পাবে না যে দারুণ ৫টি অ্যাপ!

Tashfikal Sami is a diehard wrestling & horror movie fan. Passionately loves bodybuilding, writing, drawing cartoons & a wannabe horror film director. He's currently studying at the Institute of Business Administration (IBA), University of Dhaka.

পুরোটা পড়ার সময় নেই? ব্লগটি একবার শুনে নাও।

অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের সিংহভাগ অ্যাপের খোঁজ মেলে প্লে স্টোরে। কিন্তু এমনও অনেক অ্যাপস রয়েছে যেগুলো সাধারন মানুষের চোখের আড়ালেই থেকে যায়। “ওপেন সোর্স” নামে পরিচিত এই অ্যাপগুলোর একটি চমৎকার জগত আছে যেখানে মানুষ অসাধারন সব অ্যাপস সবার ব্যবহারের জন্য বিনামূল্যে উন্মুক্ত করে দেয়!

কিন্তু প্লে স্টোরে সেগুলো না থাকায় সাধারন মানুষের কাছে বেশিরভাগ সময়ই সেই অ্যাপগুলোর খবর পৌঁছায় না। আজ এমনই দারুণ কাজের পাঁচটি ওপেন সোর্স অ্যাপস সম্পর্কে জেনে নাও লেখাটি থেকে:

১। BLOKADA

অনলাইনে ব্রাউজিং করার সময় নানারকম অ্যাডের জ্বালাতন সবখানেই কমবেশি সহ্য করতে হয়! কখনো কখনো একটি লিঙ্কে ক্লিক করলে মুহূর্তের মাঝে তরতর করে পাঁচ ছয়টি লিঙ্ক ওপেন হয়ে যায় এবং বিচিত্র সব অ্যাপস ডাউনলোড হওয়া শুরু করে অথবা “আপনার স্মার্টফোনটি ভাইরাসে আক্রান্ত” বিকট ভাইব্রেশনের সাথে এমন উদ্ভট সব মেসেজ আসতে থাকে! এমন অনাকাঙ্ক্ষিত বিড়ম্বনা থেকে মুক্তি দিতেই চমৎকার কাজে দেবে BLOKADA.

যদিও ইউসি ব্রাউজার সহ বেশির ভাগ ব্রাউজারেরই নিজস্ব “অ্যাড ব্লক” সিস্টেম থাকে, কিন্তু সেগুলো অনেক ক্ষেত্রেই তেমন কাজে আসে না। এখানেই BLOKADA-র বাহাদুরি! (সবার জন্য পরামর্শ রইলো অ্যাপটির নোটিফিকেশন অফ করে রাখার, কারণ সারাদিনে এতো বেশি অ্যাড ব্লক করে এই অ্যাপটি, যে প্রতিটির জন্য আলাদা করে নোটিফিকেশন দেখতে দেখতে বিরক্তি ধরে যাবে!)

ওপেন সোর্স অ্যাপগুলোর অন্যতম বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এগুলোর ব্যবহার খুবই সহজ এবং অ্যাপগুলো দেখতেও ছিমছাম। BLOKADA-ও এর ব্যতিক্রম নয়। খুবই সহজ ব্যবহারবিধি, সুন্দর ইন্টারফেসের এই অ্যাপটি অনলাইন ব্রাউজিং অভিজ্ঞতাকে করে তুলবে আরো গতিশীল, মসৃণ।

অ্যাপটি ডাউনলোড করতে চলে যাও এই লিঙ্কেঃ

http://blokada.org/index.html

২। Popcorn Time

নেট থেকে মুভি ডাউনলোড বা স্ট্রিমিং করে দেখা নিয়ে সবারই কম-বেশি বিড়ম্বনার অভিজ্ঞতা রয়েছে! অনেকসময়ই দেখা যায় সাইটগুলো সাময়িকভাবে বন্ধ রয়েছে, অথবা লিঙ্ক কাজ করছে না, আর একের পর এক অ্যাডের ফ্যাসাদ তো রয়েছেই! (সেটির সমাধান অবশ্য উপরের অ্যাপটিতেই মিলে গেছে)যদিও বা একটি লিঙ্ক পাওয়া যায়, সেটিতে হয়তো আবার সাবটাইটেল নেই।

এমন হরেক রকম সমস্যার একটি চমৎকার সমাধান- পপকর্ন টাইম! এই অ্যাপটিতে সবরকম ডিজিটাল মিডিয়া (অর্থাৎ মুভি থেকে শুরু করে টিভি সিরিজ, ডকুমেন্টারি ইত্যাদি সবকিছু) হাই ডেফিনিশন কোয়ালিটিতে দেখতে পাওয়া যাবে।

সাবটাইটেল নিয়েও কোন সমস্যা হবে না, অ্যাপটি নিজে থেকেই বিভিন্ন ভাষার সাবটাইটেল এনে দিবে তোমার কাছে, তুমি পছন্দমতো একটি বাছাই করে নিতে পারবে।

পৃথিবীজুড়ে বিনোদনপ্রিয় মানুষের কাছে তাই অন্যতম জনপ্রিয় একটি নাম- পপকর্ন টাইম। ব্যবহার করেই দেখো, হয়তো তুমিও ভক্ত বনে যাবে পপকর্নের! এর অন্যতম বড় সুযোগ হলো অ্যান্ড্রয়েড প্ল্যাটফর্মের পাশাপাশি তুমি এটি ম্যাকিন্টোশ, উইন্ডোজ, আইওএস এবং লিনাক্স প্ল্যাটফর্মের জন্যও ব্যবহার করতে পারবে।

অ্যাপটি ডাউনলোড করতে ক্লিক করো এই লিঙ্কেঃ

https://popcorn-time.to

 

৩। OG Youtube

স্মার্টফোন আছে কিন্তু ইউটিউব ব্যবহার করে না এমন মানুষ বিরল। তাই ইউটিউবের অফিশিয়াল অ্যাপটি বিপুল জনপ্রিয় অ্যাপের তালিকায় প্রথম সারিতেই থাকবে। কিন্তু অ্যাপটির অন্যতম সমস্যা এখানে ভিডিওগুলো ডাউনলোড করার কোন অপশন নেই।

এ সমস্যা থেকে মুক্তি দিতেই জন্ম হয়েছে OG Youtube অ্যাপটির! একদম হুবহু ইউটিউবের অ্যাপটির মতোই দেখতে এটি, কাজও করে অফিশিয়াল ইউটিউব অ্যাপের মতো। কিন্তু বাড়তি সুবিধা হিসেবে রয়েছে ডাউনলোডের অপশন।

এখানে যেকোন ভিডিও হাই ডেফিনিশন থেকে শুরু করে একদম লো কোয়ালিটি, অথবা এমপিথ্রি ফরম্যাটে ডাউনলোড করতে পারবে ইচ্ছেমতো।

অ্যাপটির আরেকটি অসাধারন বৈশিষ্ট্য হচ্ছে- এটিতে যেকোন ভিডিও ব্যাকগ্রাউন্ডে প্লে করা সম্ভব! অন্য সব ব্রাউজার বা অ্যাপে ভিডিও দেখার সময় অ্যাপ থেকে বের হয়ে অন্য কিছু করতে গেলে ভিডিও বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু এই অ্যাপে ভিডিও ছেড়ে রেখে স্মার্টফোনে অন্য যেকোন কাজ করতে পারবে, ভিডিও বন্ধ হবে না!

তাই আমার মতো যারা কাজের সাথে সংগীতের সম্মিলনে এগিয়ে চলে তাদের জন্য এই অ্যাপটির কোন বিকল্প নেই!

OG Youtube ছাড়াও রয়েছে OG Instagram, যেটি একদম হুবুহু অফিশিয়াল ইন্সটাগ্রাম অ্যাপের মতোই, কিন্তু বোনাস হিসেবে রয়েছে যেকোন ছবি ডাউনলোড করার অপশান! এরকম আরো রয়েছে OG Whatsapp যেখানে একই সাথে দুইটি ফোন নাম্বার ব্যবহার করতে পারবে ইত্যাদি!

OG Youtube ডাউনলোড করতে পারবে এই লিঙ্ক থেকেঃ  

https://ogyoutube.en.uptodown.com/android

৪। PPSSPP

এই অ্যাপটি যদিও প্লে স্টোরে পাওয়া যায়, কিন্তু ওপেন সোর্সের জগতে অ্যাপটি দারুণ কদর পেয়েছে বিধায় এটিকে তালিকায় রাখা হলো।

অ্যান্ড্রয়েডে খেলার জন্য প্রতিদিন দারুণ সব গেইম তৈরি হচ্ছে সন্দেহ নেই, কিন্তু অ্যান্ড্রয়েডের বাইরেও গেইম খেলার বিশাল একটি জগত রয়েছে, সেটি তোমার সামনে উন্মুক্ত করে দিবে পিপিএসএসপিপি!

পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় গেইমিং কনসোলের একটি ‘প্লে স্টেশন পোর্টেবল’ বা পিএসপি। পিপিএসএসপিপি অ্যাপটি পিএসপির যেকোন গেইম তোমার স্মার্টফোনে খেলার সুযোগ করে দেবে যেগুলো অনেকক্ষেত্রে অ্যান্ড্রয়েডের গেইমগুলোর চেয়ে অনেক বেশি আকর্ষণীয়!

অ্যাপটি ডাউনলোড করতে চলে যাও এই লিঙ্কেঃ

http://www.ppsspp.org

৫। F-Droid

উপরে যে চারটি অ্যাপের কথা জানলে, এমন আরো অজস্র অ্যাপ রয়েছে ওপেন সোর্সের জগতে, প্রশ্ন হচ্ছে সেগুলোর খোঁজ কীভাবে মিলবে? ওপেন সোর্সের অ্যাপগুলো তো গুগল প্লে স্টোরের মতো কোথাও সংকলিত নেই, তাহলে ইচ্ছেমতো অ্যাপ খুঁজে পাওয়ার উপায় কী?

এই প্রশ্নের উত্তর দিতেই তৈরি হয়েছে এফ-ড্রয়েড। প্লে স্টোরে যেমন সব অ্যাপস একসাথে রয়েছে, এই অ্যাপটিতেও তেমনি ওপেন সোর্সের যেকোন অ্যাপের সন্ধান পেয়ে যাবে!  

ওপেন সোর্সের অ্যাপগুলো হয়তো দেখতে আহামরি দৃষ্টিনন্দন না,  কিন্তু উপযোগিতা বা দক্ষতার দিক থেকে এগুলোর কোন তুলনা হয় না  বিশ্বজুড়ে  ডেভেলপাররা সবার জন্য উন্মুক্ত একটি অনলাইন জগত গড়ে তুলতে কাজ করে চলেছেন, যেন একদম বিনামূল্যে পৃথিবীর যেকোন প্রান্ত থেকে মানুষ সেবা উপভোগ করতে পারে।

ওপেন সোর্স অ্যাপগুলোকে তারা এই মুক্তবিশ্বের আন্দোলনের একটি অংশ হিসেবেই দেখেন এখানে তাদের অর্থ উপার্জনের কিছু নেই, বরং রয়েছে মানুষের কল্যাণে এগিয়ে আসার ভালবাসামাখা প্রচেষ্টা।

এফ-ড্রয়েড ডাউনলোড করতে পারবে এই লিঙ্ক থেকেঃ

https://f-droid.org/en/


১০ মিনিট স্কুলের লাইভ এডমিশন কোচিং ক্লাসগুলো অনুসরণ করতে সরাসরি চলে যেতে পারো এই লিঙ্কে: www.10minuteschool.com/admissions/live/

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: [email protected]

লেখাটি ভালো লেগে থাকলে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে ভুলবেন না!
What are you thinking?

GET IN TOUCH

10 Minute School is the largest online educational platform in Bangladesh. Through our website, app and social media, more than 1.5 million students are accessing quality education each day to accelerate their learning.