বাঁ-হাতিদের ব্যাপারে সাতটি মজার তথ্য

January 13, 2019 ...

আমাদের সবারই এমন কয়েকজন বন্ধু আছে যারা বাম হাত দিয়ে দৈনন্দিন কাজ করতে বেশি পারদর্শী। ক্লাসে যখন দেখা যায় পাশের জন বাম হাত দিয়ে খাতায় লিখছে, তখন তাকে নিয়ে আমাদের সবার আগ্রহ বেড়ে যায়। বাড়বেই না কেনো! চারপাশে হাজারো ডান-হাতির ভীরে এমন দু-একজন বাঁ-হাতি সচরাচর চোখেই পড়ে না। পুরো পৃথিবীতে ৯০ শতাংশ মানুষ হলো ডান-হাতি আর বাকি মাত্র ১০ শতাংশ মানুষ হলো বাঁ-হাতি।

মূলত জিনগত কিছু বৈশিষ্ট্যের তারতম্যের জন্য এই পার্থক্যের দেখা দেয়। যারা ডান হাত দিয়ে বেশিরভাগ কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে, তারা হলো ডান-হাতি এবং যারা বাম হাতে কাজ করতে সচরাচর সুবিধা মনে করে, তারা হলো বাঁ-হাতি। এই দুই জাতির মাঝে আবার আরেক জাতি আছে যারা দুই হাত দিয়েই সমান তালে কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্য মনে করতে। এর মানে এই না যে তারা সব রকমের কাজই দুই হাতে করতে পারে। তারা আলাদা আলাদা কাজের জন্য দুই হাত আলাদাভাবে ব্যবহার করতে সুবিধা মনে করে। এদেরকে বলা হয় মিশ্র-হাতি। শতকরা হিসাবের কথা বললে এদের পরিমাণ হবে মোটে ১%। দুই হাত সমান তালে ব্যবহার করতে পারা যে একেবারে অসম্ভব তা কিন্তু না। তবে এদের সচরাচর দেখা যায় না। এই দক্ষতা অর্জনের জন্য নিজেকে কঠোরভাবে পরিশ্রম করতে হয়।

LB6pgnMxdQWhB4i

আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা হলেন একজন বাঁ-হাতি; image source:Business Insider

তবে বাঁ-হাতি যারা আছে, তাদের ব্যাপারে বেশ কয়েকটি মজার তথ্য আছে যা আমরা অনেকেই জানি না। বাঁ-হাতিদের সাথে নিয়মিত চলি-ফিরি। কিন্তু তাদের ব্যাপার গভীরভাবে খুব কমই জানা হয়। বাম হাত ব্যবহারে পারদর্শী হবার কারণে দৈনন্দিন কাজকর্ম থেকে শুরু করে খেলাধুলায় দক্ষতা, চিন্তার জগৎ, বুদ্ধির বিকাশ সবদিকেই তাদের একটি স্পষ্ট পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়। এমনই কিছু মজার তথ্য আমরা আজকের এই লেখা থেকে জেনে নিবো।

বাঁ-হাতি হবার পিছনে রয়েছে জিনগত প্রভাব

যদিও এটি এখনও নিশ্চিত না ঠিক কী কারণে কিছু মানুষের বাম হাতের উপর প্রাধান্য বেশি থাকে, তবে এর পিছনে যে আমাদের শরীরের জিনের বেশ ভালো ভূমিকা রয়েছে তা বিজ্ঞানীরা নিশ্চিত করেছে। টেক্সাস-অস্টিন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাইকোলোজির প্রফেসর রোনাল্ড ইয়েও এর মতে, একজন মানুষের বাঁ-হাতি হবার পিছনে তার জিনগত বৈশিষ্ট্য শতকরা ২৫ ভাগ দায়ী। তার গবেষণা তথ্য মতে, একজন মানুষের জন্মগত সকল বৈশিষ্ট্যের মাঝে তার বংশগত কিছু বৈশিষ্ট্যের ছাপ থেকে যায়। তাই বাঁ-হাতি হবার ঘটনাটিকে বিজ্ঞানীরা কিছুটা বংশগত ব্যাপার বলে মনে করেন।

যমজদের মাঝে একজন বাঁ-হাতি হবার সম্ভাবনা সবসময়ই থাকে

যারা যমজ হয়ে জন্ম নেয়, তাদেরকে মাঝে মধ্যে একে অপরের প্রতিবিম্ব বলে মনে হয়। একজনের যদি কাঁধের বাম পাশে তিল থাকে, তাহলে আরেকজনের থাকবে কাঁধের ডান পাশে। একসময় এমন মনে করা হতো যে, যমজ শিশুদের জেনেটিক সিকুয়েন্স হবে একটি আরেকটির প্রতিবিম্ব। তাই যমজ শিশুদের একজন হবে ডান-হাতি এবং অপরজন হবে বাঁ-হাতি। এমনও ধারণা করা হতো যখন একজন বাঁ-হাতি শিশু জন্মগ্রহণ করে, তার ডান-হাতি যেই যমজটি ছিলো সে গর্ভাবস্থায় মারা গিয়েছে। অর্থাৎ তখন এই ধারণা ব্যাপক তীব্র ছিলো যে, একজন বাঁ-হাতি শিশু অবশ্যই যমজ হিসেবে জন্মগ্রহণ করবে। তবে এগুলোর সবগুলোই ছিলো কাল্পনিক ধারণা ও মতবাদ এবং এর কোনটির পিছনেই বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা দাঁড় করানো সম্ভব হয়নি।

তবে এই তথ্য সত্য যে, যমজ শিশুদের মাঝে অন্তত একজন শিশু বাঁহাতি হবার প্রবণতা তুলনামূলকভাবে বেশি। ১৯৯৬ সালে বেলজিয়ামে হয়ে যাওয়া একটি গবেষণা তথ্য থেকে জানা যায়, শতকরা ২১ ভাগ ক্ষেত্রে যমজ শিশুদের মাঝে অন্তত একজন বাঁ-হাতি হবার সম্ভাবনা রয়েছে।

cCfzjDDIHOuMLbHm8yj8iaWwtB531T EjmoCwCc63NO h2bteW0l WWfcKq5zmlviLv1lLEBOtIU4uB4zIALoK y20teT97O3W8dPQNVk7geXPMGQGgOJLUjXkBNEhKQtA7BYCzJ

বাঁ-হাতিদের ব্যাপারে কিছু তথ্য যা আমরা অনেকেই জানি না; image source: Pinterest

বাঁ-হাতি মানেই ডান পাশের মস্তিষ্ক প্রভাব বিস্তার করবে এমনটি নয়

অনেকেই মনে করে থাকে ডান-হাতিদের সব ধরণের কার্যক্রমে মস্তিষ্কের বাম পাশের অংশ অধিক সচল থাকে বিঁধায় বাঁ-হাতিদের ক্ষেত্রে তাদের মস্তিষ্কের ডানা পাশের অংশ অধিক কার্যকর ভূমিকা পালন করে। কিন্তু এটি আসলে একটি সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। যেখানে সকল ডান-হাতির ক্ষেত্রেই মস্তিষ্কের বাম গোলক তার স্বাভাবিক ভূমিকা পালন করে না, সেখানে বাঁ-হাতিদের ক্ষেত্রে সবসময় তাদের মস্তিষ্কের ডান অংশ বেশিরভাগ কাজ করবে এমনটা ভাবাই অমূলক। ৯৮ শতাংশ ডান-হাতিদের ক্ষেত্রে তাদের মস্তিষ্কের বাম অংশ অধিক কার্যকর ডান অংশের তুলনায়। একইভাবে ৭০ শতাংশ বাঁ-হাতিদেরও তাদের মস্তিষ্কের বাম অংশ অধিক কার্যকর ভূমিকা পালন করে। বাকি ৩০% এর ক্ষেত্রে মস্তিষ্কের ডান অংশ অধিক কার্যকর অথবা মস্তিষ্কের উভয় অংশই সমান কার্যকর। নিউ জিল্যান্ডের ওয়েলিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর গিনা গ্রিমশ এর মতে, সব বাঁ-হাতি ব্যাক্তিই মনে রাখা, হিসাব করা, ভাষা শিখা এসব ক্ষেত্রে ডান-হাতিদের সমান পারদর্শীতা দেখায়। তাই কোনোভাবেই ডান-হাতি এবং বাঁ-হাতিদের মস্তিষ্কের মাঝে প্রভেদ থাকতে পারে না।

চল স্বপ্ন ছুঁই!

বাঁ-হাতি নাকি ডান-হাতি তার প্রভাব পরে চিন্তাভাবনার উপরও

“টাকা পয়সা ডান হাত দিয়ে আসে আর বাম হাত দিয়ে যায়।” “সে হলো আমার ডান হাত আর ও হলো আমার বাম হাত।” এরকম কথাগুলো দিয়ে আমরা বুঝি ডান হাত ব্যবহার হয় সব ভালো কাজের জন্য আর বাম হাত ব্যবহার হয় সব আজেবাজে কাজের জন্য। ব্যাপারটা ডান-হাতিদের ক্ষেত্রে অনেকটা মিলে গেলেও বাঁ-হাতিদের ক্ষেত্রে কিন্তু পুরো বিপরীত। ২০০৯ সালে স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি পরীক্ষা করা হয় বাঁ-হাতি এবং ডান-হাতিদের নিয়ে। পরীক্ষায় ভোলান্টিয়ারদের সামানে দুটো পিলারে একটি করে ছবি রাখা হয়। তাদের বলা হয় ছবি দুটোর মধ্যে কোন ছবিটি তাদের কাছে বেশি আকর্ষনীয় মনে হয়। ফলাফলে দেখা গেলো যারা ডান-হাতি, তাদের বেশিরভাগ ডান দিকের ছবি এবং যারা বাঁ-হাতি, তাদের বেশিরভাগ বাম পাশের ছবিটি পছন্দ করেছে। এরকম আরও বেশ কয়েকটি পরীক্ষার ফলাফল থেকে ধারণা পাওয়া যায় কোন হাতের উপর আমাদের প্রাধান্য বেশি তার উপর নির্ভর করে আমাদের সিদ্ধান্তও প্রভাবিত হতে পারে। কিছু বিজ্ঞানী এটাও বিশ্বাস করেন, কোন হাতের উপর আমাদের প্রাধান্য বেশি তার উপর ভিত্তি করে ব্যালটে কোন প্রার্থীকে আমরা ভোট দিতে চাই সেটিও প্রভাবিত হতে হতে পারে!

খেলাধুলায় সাফল্যের জন্য এগিয়ে থাকে বাঁ-হাতিরা

বাংলাদেশের সেরা কয়েকজন ক্রিকেটারের নাম বলতে গেলে প্রথমেই যাদের নাম মুখে আসে তাদের বেশিরভাগই বাঁ-হাতি। তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুস্তাফিজুর রহমান এরা সবাই বাংলাদেশের ক্রিকেটের বাঁ-হাতি তারকা। ক্রিকেটে এদের সাফল্যের কথা এখন পুরো বিশ্ববাসী জানে। শুধু ক্রিকেটেই না, পুরো পৃথিবীতে প্রায় সব ধরণের খেলাতেই বাঁ-হাতিরা আলাদা সাফল্য দেখিয়ে আসছে। বিশেষ করে ওয়ান-অন-ওয়ান খেলা যেমন বক্সিং, টেনিস এগুলোর ক্ষেত্রে বাঁ-হাতিরা আলাদা সুবিধা পেয়ে থাকে। মূল খেলার আগে অনুশীলনের সময় সাধারণত সবাই ডান-হাতি প্রতিপক্ষের বিপক্ষেই অনুশীলন করে। ডান-হাতি প্রতিপক্ষের কৌশলেই সবাই অভ্যস্ত হয়ে যায়। কিন্তু মূল খেলায় যখন বাঁ-হাতি প্রতিপক্ষের ভিন্ন কৌশলের সামনে পড়তে হয়, তখন বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই ঘাবড়ে যায়। অপরদিকে বাঁ-হাতিরাও অন্য সবার মতো ডান-হাতি প্রতিপক্ষের সাথে অনুশীলন করে অভ্যস্ত হয়ে যায়। তাই খেলাধুলায় বাঁ-হাতি হলে সাফল্য পাবার সম্ভাবনা সবক্ষেত্রেই এগিয়ে থাকে।

86tPt6rQB7 WLdO3UIKBMj7JOQyEztUzO7j77P2yzSkRzwwVdKNY r7Ur4OtQNujfYjKNmhbp52W8 cc7rwCLvP r0TST updn0cfl3Z5Vw3gLGrYYhc40EzUgRcRbptpL3tacgA

বাঁ-হাতি খেলোয়াড়রা সবক্ষেত্রেই আলাদা সাফল্য দেখিয়ে আসছে; image source: Bdcrictime

বাঁ-হাতিরা সহজেই অন্য হাতে অভ্যস্ত হয়ে যেতে পারে

এই তথ্যটি সবার বেলায় সত্য নাও হতে পারে। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কোনো কারণে বাঁ-হাতে সমস্যা হলে তারা কাজ করার জন্য ডান হাতে নিজেদের মানিয়ে নিতে পারে। কোনো দুর্ঘটনায় বাম হাত যদি ভেঙ্গে যায়, তাহলে দৈনন্দিন কাজ চালিয়ে নিতে তারা সাময়িকের জন্য ডান হাতে নিজেদের অভ্যস্ত করে নেয়। তবে ডান-হাতিদের ক্ষেত্রে কাজটা বেশ কঠিন। তারা চাইলেও বাম হাতে নিজেদেরকে বাঁ-হাতিদের মতো মানিয়ে নিতে পারে না। আগেই বলেছি তথ্যটি সবার জন্য সত্য নয়। তবে বাঁ-হাতিদের জন্য এই হাত পরিবর্তনের কাজটা তুলনামূলক সহজ।

১৩ই আগস্ট বিশ্ব বাঁ-হাতি দিবস

পৃথিবীর মাত্র ১০ শতাংশ বাঁ-হাতিদের জন্য যে আলাদা একটি দিবস রয়েছে এটা বোধ হয় অনেক বাঁ-হাতি নিজেরাও জানে না। বিশেষ কোনো উপলক্ষ্য না। দৈনন্দিন কাজে তাদের যে আলাদাভাবে কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, সেগুলো সবার সামনে তুলে ধরার জন্যই এই দিবস। এই দিন বাঁ-হাতিদের যে সব ডান-হাতি বন্ধু আছে তারা দিনের কিছু সময়ের জন্য বাম হাতে কাজ করার চ্যালেঞ্জ নিয়ে থাকে। এই দিন উপলক্ষ্যে খুব মজার একটি চ্যালেঞ্জ আছে যারা আমরা চাইলেই আমাদের বন্ধুদের সাথে খেলতে পারি। ঘরের বা অফিসের একটি অংশ ঠিক করা থাকবে যেখানে প্রবেশ করলেই, সেখানে যতো কাজ আছে সব বাম হাতের উপর নির্ভর করে করতে হবে। চা বানানো, রুটিতে জেলি লাগানো এধরণের প্রতিদিনকার কাজগুলো করতে হবে বাম হাতের উপর প্রাধান্য বিস্তার করে। আমরা যারা আগে এই দিনটির ব্যাপারে জানতাম না, তারা চাইলে আমাদের ডান-হাতি বন্ধুদের সাথে মজা করে এই দিনে কিছু চ্যালেঞ্জের আয়োজন করতেই পারি।

OILv9NDUskaPbZ2kVQcvruWbCFzRR HghPl3SjarTQyoSOWM5gyoe

বুদ্ধির বিচারে বাঁ-হাতি এবং ডান-হাতির কোনো তফাৎ নেই; image source: Giphy

বাঁ-হাতি হওয়া যেমন বেশ মজার তেমনই বাঁ-হাতিদের প্রতিদিন কিছু না কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। যেসব কাজে যন্ত্রের ব্যবহার রয়েছে, সেসব কাজে যদি যন্ত্র বানানো হয় ডান-হাতিদের ব্যবহারের কথা চিন্তা করে তাহলে বাঁ-হাতিদের কিছু জটিলতার সম্মুখীন হতেই হয়। গিটার বাজানোর কথাই ধরা যাক। বাঁ-হাতিরা চাইলেই ডান-হাতিদের জন্য বানানো গিটারে নিজেদের মানিয়ে নিতে পারে না। এজন্য বাঁ-হাতিদের জন্য আলাদা গিটার ডিজাইন করা হয়। একইভাবে স্কুল-কলেজগুলোতে বাঁ-হাতিদের জন্য আলাদা চেয়ার ডিজাইন করা হয়। সমাজের সবাই যাতে নিজ নিজ যোগ্যতা অনুযায়ী সমান সুযোগ পায়, সেটা নিশ্চিত করা আমাদের সকলের দায়িত্ব।

References:

  1. https://edition.cnn.com/2015/11/03/health/being-left-handed-health-impact/index.html
  2. https://brightside.me/wonder-curiosities/left-handed-people-are-truly-exceptional-according-to-science-667360/?fbclid=IwAR1T9JSfS7Ym0rXUhQzogGFxdusH–KULOvVNIR-85-9bqsEY-bI3HFHXrE
  3. http://www.horizontimes.com/facts/14-unique-facts-left-handed-people
  4. https://www.lefthandersday.com/left-handers-day/how-celebrate#.XDNTYk71tas

১০ মিনিট স্কুলের ব্লগের জন্য কোনো লেখা পাঠাতে চাইলে, সরাসরি তোমার লেখাটি ই-মেইল কর এই ঠিকানায়: write@10minuteschool.com

আপনার কমেন্ট লিখুন