পাঠকপ্রিয় সেরা পাঁচ (জীবনী, স্মৃতিচারণ ও সাক্ষাৎকার)

পুরোটা পড়ার সময় নেই? ব্লগটি একবারে শুনে নাও!

বই পড়তে গিয়ে সঠিক বইটি বেছে নিতে কিছুটা সমস্যায় ভুগতে হয় যাদের, তাদের জন্যই আমরা বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক সর্বাধিক পাঠকপ্রিয়তা পাওয়া বইগুলো সম্পর্কে জানাতে চেষ্টা করছি। তারই ধারাবাহিকতায় তোমাদের জন্য আজ থাকছে সেরা পাঁচ  জীবনী, স্মৃতিচারণ ও সাক্ষাৎকার।

বঙ্গভবনে শেষ দিনগুলি

বিচারপতি আবু সাদাত মুহাম্মদ সায়েম

 

লেখক বাংলাদেশের প্রথম প্রধান বিচারপতি এবং বাংলাদেশের ষষ্ঠ রাষ্ট্রপতি। আলোচ্য বইটি মূলত তাঁর আত্মজীবনী, যেখানে তিনি ১৯৭৫-৭৭ সালে বাংলাদেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটের অস্থিরতা এবং এই বিষয়ক ঘটনাবলি আলোচনা করেছেন।

বঙ্গবন্ধুর হত্যাকান্ড পরবর্তী সময়ে রাজনৈতিক অস্থিরতা এবং এই সময়ের ঘটনাগুলোর ইতিহাস বিচারে এই আত্নজীবনীটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

বিশেষ ছাড়ে বইটি কিনতে চাইলে চলে যাও এই লিংকে!

অসমাপ্ত আত্মজীবনী 

শেখ মুজিবুর রহমান

২০০৪ সালে শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা চারটি খাতা আকস্মিকভাবে তাঁর কন্যা শেখ হাসিনার হস্তগত হয়। খাতাগুলি অতি পুরানো, পাতাগুলি জীর্ণপ্রায় এবং লেখা প্রায়শ অস্পষ্ট। মূল্যবান সেই খাতাগুলি পাঠ করে জানা গেল এটি বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী, যা তিনি ১৯৬৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে ঢাকা সেন্ট্রাল জেলে অন্তরীণ অবস্থায় লেখা শুরু করেছিলেন, কিন্তু শেষ করতে পারেননি।

জেল-জুলুম, নিগ্রহ-নিপীড়ন যাঁকে সদা তাড়া করে ফিরেছে, রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে উৎসর্গীকৃত-প্রাণ, সদাব্যস্ত বঙ্গবন্ধু যে আত্মজীবনী লেখায় হাত দিয়েছিলেন এবং কিছুটা লিখেছেনও, এই বইটি তার সাক্ষর বহন করছে।

বইটিতে আত্মজীবনী লেখার প্রেক্ষাপট, লেখকের বংশ পরিচয়, জন্ম, শৈশব, স্কুল ও কলেজের শিক্ষাজীবনের পাশাপাশি সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড, দুর্ভিক্ষ, বিহার ও কলকাতার দাঙ্গা, দেশভাগ, কলকাতাকেন্দ্রিক প্রাদেশিক মুসলিম ছাত্রলীগ ও মুসলিম লীগের রাজনীতি, দেশ বিভাগের পরবর্তী সময় থেকে ১৯৫৪ সাল অবধি পূর্ব বাংলার রাজনীতি, কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক মুসলিম লীগ সরকারের অপশাসন, ভাষা আন্দোলন, ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা, যুক্তফ্রন্ট গঠন ও নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন, আদমজীর দাঙ্গা, পাকিস্তান কেন্দ্রীয় সরকারের বৈষম্যমূলক শাসন ও প্রাসাদ ষড়যন্ত্রের বিস্তৃত বিবরণ এবং এসব বিষয়ে লেখকের প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতার বর্ণনা রয়েছে।

আছে লেখকের কারাজীবন, পিতা-মাতা, সন্তান-সন্ততি ও সর্বোপরি সর্বংসহা সহধর্মিণীর কথা, যিনি তাঁর রাজনৈতিক জীবনে সহায়ক শক্তি হিসেবে সকল দুঃসময়ে অবিচল পাশে ছিলেন। একইসঙ্গে লেখকের চীন, ভারত ও পশ্চিম পাকিস্তান ভ্রমণের বর্ণনাও বইটিকে বিশেষ মাত্রা দিয়েছে।

বিশেষ ছাড়ে বইটি কিনতে চাইলে চলে যাও এই লিংকে!

কারাগারের রোজনামচা

শেখ মুজিবুর রহমান

ভাষা আন্দোলন থেকে ধাপে ধাপে স্বাধীনতা অর্জনের সোপানগুলি যে কত বন্ধুর পথ অতিক্রম করে এগুতে হয়েছে তার কিছুটা এই কারাগারের রোজনামচা বই থেকে পাওয়া যাবে। স্বাধীন বাংলাদেশ ও স্বাধীন জাতি হিসেবে মর্যাদা বাঙালি পেয়েছে যে সংগ্রামের মধ্য দিয়ে, সেই সংগ্রামে অনেক ব্যথা-বেদনা, অশ্রু ও রক্তের ইতিহাস রয়েছে। মহান ত্যাগের মধ্য দিয়ে মহৎ অর্জন দিয়ে গেছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ।

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের মানুষের স্বাধীনতা অর্জনের জন্য সংগ্রাম করেছেন । বাংলার মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য নিজের জীবনের সব আরাম-আয়েশ ত্যাগ করে দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন । তিনি জীবনের অধিকাংশ সময় কারাগারে বন্দি জীবন যাপন করেন ।

বার বার গ্রেফতার হন তিনি । মিথ্যা মামলা দিয়ে তাঁকে হয়রানি করা হয় । আইয়ুব-মোনায়েম স্বৈরাচারী সরকার একের পর এক মামলা যেমন দেয়, সেই মামলায় কোনো কোনো সময় সাজাও দেয়া হয় তাঁকে।

তাঁর জীবনে এমন সময়ও গেছে, যখন মামলার সাজা খাটা হয়ে গেছে, তারপরও জেলে বন্দি করে রেখেছে তাঁকে । এমনকি বন্দিখানা থেকে মুক্তি পেয়ে বাড়ি ফিরতে পারেন নাই, হয় পুনরায় গ্রেফতার হয়ে জেলে গেছেন অথবা রাস্তা থেকে- গ্রেফতার করে জেলে পাঠিয়েছে।

মহান মানুষটির কারাগারজীবনের কথাগুলো নিয়েই এই উপন্যাসটি।

বিশেষ ছাড়ে বইটি কিনতে চাইলে চলে যাও এই লিংকে!

তাজউদ্দীন আহমদ : নেতা ও পিতা

শারমিন আহমদ

তাজউদ্দীন আহমদ ও সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীনের জ্যেষ্ঠ কন্যা শারমিন আহমদের জন্ম ঢাকা শহরে।

বিশ্বের পেশাজীবী নারীদের অন্যতম বৃহত্তম মানব উন্নয়ন সংগঠন দ্য আমেরিকাস, ওয়াশিংটন ডিসি, “আন্তর্জাতিক শুভেচ্ছা ও পারস্পরিক সমঝোতা রচনার ক্ষেত্রে অসামান্য অবদানের” জন্য তাঁকে “উয়োম্যান অব ডিস্টিংশন” অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে। নিজের বাবার রাজনৈতিক কার্যকলাপ, মুক্তিযুদ্ধের পটভূমিতে তাঁর ভূমিকা- সবই কাছ থেকে দেখেছেন শারমিন।

নেতা হিসেবে কেমন ছিলেন তাঁর বাবা, আর পিতা হিসেবেই বা কেমন ছিলেন- এই গল্পের সুতো বুনেছেন শারমিন তাঁর চমৎকার লেখনীর দ্বারা। বাংলাদেশের অভুত্থানের ইতিহাসে এক উল্লেখযোগ্য নাম তাজউদ্দীন আহমদকে জানতে বইটির বিকল্প নেই বললেই চলে।

বিশেষ ছাড়ে বইটি কিনতে চাইলে চলে যাও এই লিংকে!

শেখ মুজিব আমার পিতা

শেখ হাসিনা

বঙ্গবন্ধুর জীবন ও তাঁর পরিবারের নানা অজানা কথা উঠে এসেছে বঙ্গবন্ধুকন্যার স্মৃতিচারণে। ইতিহাস বিকৃতির ধারাবাহিক অপচেষ্টার মধ্যে এ বইটি নতুন প্রজন্মকে সত্যের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দেবে। সহজ সরল ভঙ্গিতে উচ্চারিত হৃদয়স্পর্শী বয়ান পাঠককে ইতিহাসলগ্ন হতে প্রেরণা দেয়।

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি পিতা হিসেবে কেমন ছিলেন, আদর্শ বাঙ্গালির আদর্শ পিতৃত্বের গল্পগুলো উঠে এসেছে বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর লেখা বইটিতে।

বিশেষ ছাড়ে বইটি কিনতে চাইলে চলে যাও এই লিংকে!

৫টি বই একইসাথে এক লিস্ট থেকে কিনতে চাইলে ঘুরে এসো এই লিংকটি থেকে!

এই লেখাটির অডিওবুকটি পড়েছে মনিরা আক্তার লাবনী।

What are you thinking?